কলকাতা: পুজোর আগেই খুলে যাচ্ছে চিড়িয়াখানা। শুধু চিড়িয়াখানাই নয়, রাজ্যের সব বনাঞ্চল ও দর্শনীয় স্থানগুলি পুজোর আগেই খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে করোনার সংক্রমণ এড়াতে সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে তৎপরতা নেওয়া হবে চিড়িয়াখানা ও অন্য বনাঞ্চল, দর্শনীয় স্থানে।

জানা গিয়েছে, আগামী ২ অক্টোবর থেকে খুলে যাবে রাজ্যের সব চিড়িয়াখানা। তার আগে আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে খুলে দেওয়া হচ্ছে রাজ্যের জাতীয় উদ্যান ও পর্যটন কেন্দ্রগুলি।

করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার জেরে গত ১৭ মার্চ থেকে রাজ্যের চিড়িয়াখানা, জাতীয় উদ্যান-সহ অন্য পর্যটন কেন্দ্রগুলি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তবে আনলক পর্যায় শুরু হতেই ধীরে ধীরে পর্যটন কেন্দ্রগুলি খুলে দেওয়ার ব্যাপারে তৎপরতা শুরু করেছে রাজ্য সরকার। করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চিড়িয়াখানা, জাতীয় উদ্যান-সহ অন্য পর্যটন কেন্দ্র গুলি খুলে দেওয়ার তোড়জোড় শুরু করেছে রাজ্য সরকার।

বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, কাউন্টার থেকে টিকিট বিক্রি করা হবে না। অনলাইনের মাধ্যমে টিকিট কিনতে হবে দর্শকদের। উত্তরবঙ্গের বনাঞ্চলগুলিতে আপাতত হাতি সাফারি বন্ধ থাকছে। কোভিড-বিধি মেনে জঙ্গল সাফারি চালু থাকবে। জিপ সাফারির ক্ষেত্রে একটি করে সিট ছেড়ে ছেড়ে বসতে হবে। পর্যটক-সহ প্রত্যেককে স্যানিটাইজার ও মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

রাজ্যে করোনার সংক্রমণ এখনও বেশ উদ্বেগজনক। প্রতিদিন ৩ হাজার বা তারও বেশি সংখ্যায় মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু।

রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ লক্ষ ১৮ হাজার ৭৭২। রাজ্যে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪ হাজার ২৪২। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনামুক্ত হয়েছেন মোট ১ লক্ষ ৯০ হাজার ২১ জন। বাংলায় করোনায় সুস্থতার হার বেড়ে ৮৬.৮৬ শতাংশ।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।