হাওড়াঃ  অপছন্দের মাংস নিয়ে যেতে আপত্তির কথা জানিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্যে কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে জোম্যাটো নামের এক খাবার সরবরাহকারী অ্যাপের কর্মীরা। হাওড়ায় ওই সংস্থার কর্মীদের মধ্যে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীরা রয়েছেন। হাওড়ায় ডেলিভারি কর্মীদের দাবি, তাঁদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে অপছন্দের মাংস ডেলিভারি করতে বাধ্য করছে তাদের সংস্থা। তাদের কথাও শোনা হচ্ছে না।

এর প্রতিবাদেই অনির্দিষ্টকালীন কর্মবিরতি করছেন তাঁরা। আজ সোমবার থেকে চলছে এই কর্মবিরতি। ফলে সমস্যায় পড়েছেন বহু ক্রেতা। বিশেষ করে উৎসবের মরশুমে জোম্যাটো কর্মীদের এই সিদ্ধান্তে তৈরি হয়েছে সমস্যা।

ঈদের আগে রবিবারই অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতির ডাক দেয় সংস্থার রাইডাররা। তাদের দাবি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে তারা অপছন্দের মাংস ডেলিভারি করবে না। হাওড়ার এক ডেলিভারি এক্সিকিউটিভদের দাবি, তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে সংস্থাটি জোর করে তাদেরকে অপছন্দের মাংস ডেলিভারি করতে বলছে। তাই তারা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি ডেকেছেন।

জোমাটোর খাবার সরবরাহ কর্মী মহসিন আখতার জানান, বেশ কয়েকটি মুসলিম রেস্তোঁরাকে এই অনলাইন সংস্থা সংযুক্ত করেছে, যারা গোমাংস বিক্রি করছে৷ সেই খাবার সংগ্রহ করতে পাঠানো হচ্ছে হিন্দু ডেলিভারি বয়দের৷ আবার বলা হচ্ছে মুসলিম ডেলিভারি বয়দের শূকরের মাংসের খাবার সংগ্রহ করতে হবে৷ এই ধরণের মনোভাব ও যথেচ্ছাচার মেনে নেওয়া যায়না৷ এর প্রতিবাদ জানাতেই আজ সোমবার থেকে আন্দোলনে নামা হচ্ছে বলে জানানো হচ্ছে।

সম্প্রতি জোম্যাটোর এক অহিন্দু ডেলিভারি বয়ের হাত থেকে এক গ্রাহকের খাবার নিতে অস্বীকার করায় সম্প্রতি বিতর্ক সৃষ্টি হয়। সোস্যাল মিডিয়ায় বিতর্কের ঝড় ওঠে। তবে, খাবার সরবরাহকারী সংস্থাটি ধর্ম নিয়ে জনৈক ব্যক্তির আপত্তির বিরুদ্ধে সম্প্রতি রুখে দাঁড়িয়ে ইতিবাচক পদক্ষেপ করে। তাদের বক্তব্য ছিল এই দেশে নিরামিষ ও আমিষের জন্য আলাদা লোক রাখা অসম্ভব। তবে, হাওড়ায় কর্মীদের অসন্তোষ মিটিয়ে ফেলার আশ্বাস দিয়েছে সংস্থাটি।