হারারে: কমপক্ষে তিনটি বিস্ফোরণ হয় জিম্বাবোয়ের রাজধানী হারারে তে৷ রাস্তায় সেনার গাড়িও দেখা যায়৷ বুধবার রাজধানীর রাস্তায় সেনাদের মার্চ করতে দেখা যায় বলে সূত্রের খবর৷ জিম্বাবোয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে সেনা অভ্যূত্থানের অভিযোগ আনার পর বুধবার রাজধানী হারারে অবস্থান নিয়ে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন দখলে নেন সেনাসদস্যরা।

গত সোমবার জিম্বাবোয়ের সেনাপ্রধান জেনারেল কনস্ট্যান্টিনো চুইঙ্গা বলেছিলেন, সংকট সমাধানে হস্তক্ষেপে প্রস্তুত সেনাবাহিনী। পরে বিষয়টিকে রাজনীতিতে হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনে সেনাপ্রধানকে সতর্ক করা হয় প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবের পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুন: প্রবল বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল বেসরকারি টিভি চ্যানেলের অফিস

প্রেসিডেন্ট মুগাবের নেতৃত্বাধীন দল জানু-পিএফ সেনাপ্রধান জেনারেল কনস্টাতিনো চিয়েংগা ও তার ঘনিষ্ঠদের হুমকি দেওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলি নিয়ন্ত্রণে আনে সেনাবাহিনী।

জানা যায়, বুধবার সরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ঘিরে রাখে সেনারা৷ তবে উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা টেলিভিশনের মাধ্যমে জানান তিরানব্বই বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট রোবার্ট মুগাবে নিরাপদে রয়েছেন৷ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রেসিডেন্ট এবং তাঁর পরিবার সম্পূর্ণরূপে নিরাপদে রয়েছেন৷ তাঁরা এও জানান, শুধুমাত্র তাদেরকেই টার্গেট করা হচ্ছে, যাদের উপস্থিতিতে দেশবাসীকে সামাজিক এবং অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে৷ সেনাদের মতে, খুব শীঘ্রই পরিস্থিতি স্বাভাবিক অবস্থায় ফের ফিরে আসবে৷

আরও পড়ুন: BREAKING NEWS- প্রবল বিস্ফোরণের শব্দ শহরে

হারারে এবং তার কাছে কিছু এলাকাতে কিছুক্ষণ আগে ঘটে যাওয়া বিস্ফোরণের পর সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে এই বক্তব্য পেশ করা হয়৷

এক প্রত্যক্ষদর্শীর মতে, বুধবার সকাল থেকেই প্রেসিডেন্টের বাসস্থানের কাছে গুলি ছোঁড়ার শব্দ শোনা যায়৷ ৩০-৪০ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ার শব্দ শোনা যায়৷ সশস্ত্র সেনারা এলাকায় দিয়ে যাতায়াতকারী জনসাধারণের সঙ্গেও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে বলে জানা যায়৷