বালুরঘাট: জেলাপরিষদ বিজেপিকে ফিরিয়ে দিলেন তৃণমূলের প্রাক্তন নেতা বিপ্লব মিত্র। সোমবার তাঁর নেতৃত্বেই রাজ্যে প্রথম কোনও জেলাপরিষদ বিজেপির দখলে গেল।

এদিন দিল্লিতে বিজেপির জাতীয় কার্যালয়ে খোদ সভাধিপতি সহ ১০জন সদস্য বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় তৃণমূলের একপ্রকার হাত ছাড়া হয়ে গেল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাপরিষদ। এদিন বিজেপি কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন কৈলাশ বিজয়বর্গী বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মুকুল রায় ও জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার সহ অন্যান্যরা। পাশাপাশি উপস্থিত ছিল তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি তথা বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ বিপ্লব মিত্র জেলাপরিষদের সভাধিপতি লিপিকা রায় পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ মফিজুদ্দিন মিয়া সহ আরও অনেকেই।

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাপরিষদের ১৮টি আসনের মধ্যে সভাধিপতি সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্য বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় স্বাভাবিক ভাবেই তা বিজেপির দখলে গেল বলেই রাজনৈতিক মহলের দাবি। এদিন দিল্লিতে জেলাপরিষদের সভাধিপতি লিপিকা রায়কে প্রথম বরণ করে এদিনের অনুষ্ঠান শুরু হয়। এদিন জেলাপরিষদ দখলের আনন্দে বালুরঘাটে বিজেপির জেলা কার্যালয়ে শুরু হয় উল্লাস। পটকা ফাটিয়ে ও গেরুয়া আবির খেলায় মেতে ওঠেন কর্মী সমর্থকরা। বিজেপি নেতা মুকুল রায় এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন বিপ্লব মিত্র এমন একজন রাজনৈতিক নেতা যাাঁকে উত্তরবঙ্গের সকলে এক ডাকে চেনেন।

তাঁর নেতৃত্বে প্রথম কোন জেলাপরিষদ তাঁদের দখলে এলো। এটা শুধুই শুরু। এবার দক্ষিণ দিনাজপুরের আরও দুইটি পুরসভা ও একে একে অন্যান্য জেলাপরিষদও তৃনমূলের হাত ছাড়া হবে বলে মুকুল রায় জানিয়ে দেন।

এদিকে দিল্লি থেকে বিপ্লব মিত্র জানিয়েছেন যে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের স্বৈরাচারী মনভাবের জন্য তিনি দল ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। তৃণমূলে এখন আর গণতন্ত্র বলে কিছু নেই। মানুষের হয়ে যাঁরাই কাজ করতে চাইবেন তাঁদেরই মমতা বন্দোপাধ্যায় অপমানিত করছেন।

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি অর্পিতা ঘোষ জানিয়েছেন যে সংখ্যাতে যথেষ্ট গরমিল রয়েছে। দিল্লিতে যাঁদের নিয়ে যাওয়া হয়েছে তাঁদের মধ্যে অধিকাংশকেই জোর করে নিয়ে গিয়েছে বিজেপি। অধিকাংশই ফিরে এসে ফের তৃণমূলে যোগ দিবেন বলেও তিনি দাবি করেছেন।