ধরমশালা: ভারত সফরে করোনা আতঙ্ক থাবা বসিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটারদের মধ্যে৷ করোনাভাইরাসের কারণে হ্যান্ডশেক করা থেকে বিরত থাকবেন প্রোটিয়া ক্রিকেটাররা৷ এবার করোনা আতঙ্কে মুখে মাস্ক পরতে দেখা গেল ভারতীয় দলের ক্রিকেটারকেও৷

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভারতের তিন ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজ শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার৷ সিরিজের প্রথম ম্যাচ ধরমশালায়৷ মঙ্গলবার দিল্লি থেকে ধরমশালায় উড়ে যায় ভারতীয় দল৷ দিল্লি এয়ারপোর্টে মাস্ক পরা ছবি সোশাল মিডিয়া পোস্ট করেন টিম ইন্ডিয়ার লেগ-স্পিনার যুবেন্দ্র চাহাল৷ তিন ম্যাচের সিরিজের পরের দু’টি ম্যাচ হবে যথাক্রমে লখনউ ও কলকাতায়৷

বিশ্ব জুড়ে থাবা বসিয়েছে মারণ ভাইরাস করোনা৷ এই ভাইরাসের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বন্ধ হয়ে গিয়েছে অনেক টুর্নামেন্ট৷ দক্ষিণ আফ্রিকার ভারত সফর নিয়েও ছিল সংশয়৷ কিন্তু প্রোটিয়া ক্রিকেটাররা ভারতে খেলতে কোনও আপত্তি না-করায় সিরিজ হচ্ছে পূর্ব নির্ধারিত সূচি মেনেই৷ এদিনই দিল্লি থেকে ধরমশালায় পৌঁছন ভারতীয় ক্রিকেটাররা৷ ধরমশালায় পৌঁছেই প্র্যাকটিসে নেমে পডে কোহলি অ্যান্ড কোং৷

সদ্য নিউজিল্যান্ডে গিয়ে তিন ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে বিরাটবাহিনী৷ তার পর কিউয়িদের বিরুদ্ধে দুই টেস্টের সিরিজও হেরেছে ভারত৷ সুতরাং প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ওয়ান ডে সিরিজতে মরিয়া কোহলি অ্যান্ড কোং৷ কিউয়িদের বিরুদ্ধে দলে না-থাকলেও চোট সারিয়ে দলে ফিরেছেন বিরাটের দলের এক নম্বর অল-রাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া, বাঁ-হাতি ওপেনার শিখর ধাওয়ান এবং ডানহাতি পেসার ভুবনেশ্বর কুমার৷ সেপ্টেম্বরের পর ফেরে জাতীয় দলে খেলতে দেখা যাবে পান্ডিয়াকে৷ শেষবার ভারতীয় দলের জার্সিতে হার্দিককে দেখা গিয়েছিলে গত বছর দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।