নয়াদিল্লি: কিছুটা দেরিতে হলেও করোনা মোকাবিলায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন ভারতীয় ক্রিকেটের দুই প্রিয় নাম যুবরাজ সিং ও হরভজন সিং। করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর যে আপদকালীন ফান্ড গঠন করেছেন, সেই ফান্ডে ৫০ লক্ষ টাকা দান করলেন প্রাক্তন ভারতীয় অল-রাউন্ডার যুবরাজ সিং।

করোনা মোকাবিলায় একটু ভিন্ন উপায়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন ‘টার্বুনেটর’ হরভজন সিং। প্রধানমন্ত্রী কিংবা মুখ্যমন্ত্রীর ফান্ডে অনুদান দিয়ে নয়, ভাজ্জি এবং তাঁর স্ত্রী গীতা বাসরা জলন্ধরের ৫ হাজার পরিবারের হাতে তুলে দিলেন রেশন। মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে অনুরাগীদের এই খবর জানিয়ে হরভজন লেখেন, ‘সর্বশক্তিমান ঈশ্বরের আশীর্বাদ নিয়ে কঠিন সময় জলন্ধরের ৫০০০ পরিবারের হাতে রেশন তুলে দিলাম আমি আর গীতা।’ সঙ্গে কিছু ছবিও পোস্ট করেন ভাজ্জি। একইসঙ্গে ভবিষ্যতে প্রয়োজন মতো মানুষের সেবায় তাঁরা নিয়োজিত হবেন বলেও জানান হরভজন।

অন্যদিকে প্রধস্নমন্ত্রীর কেয়ার ফান্ডে ৫০ লক্ষ টাকা অনুদানের কথা ঘোষণা করেন ২০১১ বিশ্বজয়ের অন্যতম নায়ক যুবরাজ সিং। একইসঙ্গে বিরাট কোহলি-রোহিত শর্মাদের সুরে সুর মিলিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ‘লাইট আ ক্যান্ডল’ কর্মসূচী সফল করার আহ্বান জানিয়েছেন যুবি। টুইটারে যুবরাজ লেখেন, ‘আজ রাত ৯টায় আমি মোমবাতি জ্বালাচ্ছি, আপনারা জ্বালাচ্ছেন তো?’

উল্লেখ্য, শনিবার দেশের যে সকল ৪০ জন ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে টেলিকনফারেন্সে আলোচনা সারেন প্রধানমন্ত্রী, তাদের মধ্যে যুবরাজ ছিলেন একজন। এছাড়াও প্রধ্নাওমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কলে আলোচনা সারেন সচিন তেন্ডুলকর, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, বিরাট কোহলি-সহ ক্রীড়াক্ষেত্রের অন্যান্যরাও। ছিলেন দাবায় প্রাক্তন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বিশ্বনাথন আনন্দ, বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শাটলার পিভি সিন্ধু, স্প্রিন্টার হিমা দাসরাও। করোনা রুখতে ক্রীড়াবিদদের পাঁচ দাওয়াই দেন প্রধানমন্ত্রী। সংকল্প, সংযম, সাকারাতমোক্ত, সম্মান এবং সহযোগ- এই পাঁচ মন্ত্রেই করোনাকে ঘায়েল করা যেতে পারে বলে জানান নমো।

প্রধানমন্ত্রীর ‘লাইট আ ক্যান্ডল’ কর্মসূচীকে সফল করার ডাক দিয়ে দেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার ডাক দিয়েছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটে কোহলির ডেপুটি রোহিত শর্মা।