কলকাতা: বাবার জন্মদিনের পরের দিনেই ছেলের অন্নপ্রাশন। রাজ চক্রবর্তী বলে কথা তাই সবটাই হবে ফিল্মি এবং রাজকীয়। তাই ২১ ফেব্রুয়ারি রাজ চক্রবর্তীর জন্মদিনের পরের দিনেই ক্ষুদে স্টার ইউভান এর অন্নপ্রাশনের জমজমাট আয়োজন করা হল।

৪৬ এ পা দিলেন রাজ। জন্মদিনটা রাজ চক্রবর্তীর কাটলো পরিবার পরিজন ও কাছের মানুষদের সঙ্গে। এই সম্পূর্ণ সেলিব্রেশন হলো রাজ চক্রবর্তীর হালিশহরের বাড়িতে। স্ত্রী শুভশ্রী ও ছেলে যুবানকে নিয়ে রাজ জন্মদিন কাটালো হুল্লোড়ে। আর ছিল পরিচালকের কাছের কিছু বন্ধু-বান্ধব।

রবিবার সকালে মা এর কোলে করে বাবাকে আদুরে শুভেচ্ছা জন্য যুবান তাঁর এক্সপ্রেশনে। যদিও মা মানে শুভশ্রী গাঙ্গুলি উচ্চারণ করলেন ‘হ্যাপি বার্থ ডে’। তবে এসবের মধ্যে একটু ঘুম পেয়ে গেছিলো যুবানের। কারণ, শুভশ্রী নিজেই এই ভিডিওতে জানালেন যুবানের ঘুম পেয়েছে। কিছু বুঝুক বা না বুঝুক মায়ের কোলে এই মজার দোল খেতে খেতে যুবান বেশ মজা পাচ্ছিলো। এই ভিডিও রাজ পোস্ট করলেন তাঁর সমাজ মাধ্যম পাতায়। আর ক্যাপশানে লিখেছেন, ”My better half with my little half”। পাশে দুটি লাভ ইমোজি।

এলাহি খাওয়ার আয়োজন করা হয়েছিল এই দিন। দুপুরে নিজেদের পুকুর থেকে ১৫০ কেজি মাছ তোলা হয়েছিল অতিথি আপ্যায়নের জন্য। অতিথিদের সাথে আলাপ চারিতায় রাজ পরিচয় করালেন তাঁদের পরিবারের প্রতি উৎসবে যে খাবার বানায় তাঁর সাথে। নাম তাঁর ‘রমেন’। তাঁর প্রশংসা করে রাজ বললেন,হালিশহরের বেস্ট খাবার বানায় এই মানুষটি।

রাজের প্রতিটি আচরণেই একটা জিনিস স্পষ্ট,সাফল্য টিনার জীবনে যতই আসুক,রাজ কিন্তু এখনো ভোলেনি তাঁর শিকড়ের কথা ,মাটির কথা। সন্ধ্যেতে চললো পার্টি। আর সেখানেই ট্রেন্ডে গা ভাসালেন রাজশ্রী জুটি।

আর আজ সেই বিশেষ দিন। যেদিন প্রথম বারের জন্য ভাত খেল দ্য লিট্ল স্টার যুবান। তাই আজ হালিশহরের চক্রবর্তী হাউজ সেজে উঠেছে একদম উৎসবের সাজে। জন্মের প্রথম দিন থেকেই যুবান তাঁর কিউটনেসে মাতিয়ে রেখেছে নেট জগৎ। আর যুবান তো শুধু বাংলায় নয়,এখন ন্যাশনালি পপুলার। কারণ এক বলিউডের চ্যানেল ফটোশপ করে বিরাট অনুষ্কার ‘ভমিকা’র জায়গায় ‘যুবান’ এর মুখ বসিয়ে দিয়েছিল কয়েকদিন আগে।

ব্যাপরটা অন্যায় হলেও ভাবুন তো,এই ক্ষুদে স্টারের কিউটনেসের ছটা ঠিক কতদূর বিস্তৃত। অন্নপ্রাশনের আগের দিন ছেলের সাথে কিছু মিষ্টি মুহূর্তের ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করে রাজ চেয়ে নিলেন সবার আশীর্বাদ। লিখলেন, ‘With our little one ..our heart our everything..my little bubba is growing up too fast ..shower your choicest blessings tomorrow on his rice ceremony’ আর তার নিচে শুভশ্রীর কমেন্ট,’My world’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.