মুম্বই: কয়েক মুহূর্তের মধ্যে শেষ হয়ে বছর ২৩ এর এক যুবকের তরতাজা প্রাণ৷ শুধু শেষই নয়৷ তার আত্মহত্যার এই সম্পূর্ণ ঘটনাটি ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে মুহূর্তের মধ্যে ফুটে উঠল ফেসবুকে৷ মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে বান্দ্রায়৷ এরপর দ্রুত তাকে লীলাবতি হাসপাতালে নিযে যাওয়া হয়৷ কিন্তু সেখানেই চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে৷ মানসিক অবসাদের জেরেই অর্জুন ভব়দ্বাজ এই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে৷ পুলিশ ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেছে৷

সোমবার বিকেলে ৬.২০নাগাদ ঘটনাটি ঘটে৷ তাজ ল্যান্ড এন্ড হোটেলের ১৯তলা থেকে তিনি আচমকাই ঝাঁপ দেয় অর্জুন৷ জানলার কাঁচ ভেঙে সে নীচে ঝাঁপিয়ে পরে৷ পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, তার ঘর থেকে একটি আত্মহত্যার নোট পাওয়া গিয়েছে৷ যেখানে লেখা ছিল মানসিক অবসাদ থেকেই সে এই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে৷ তবে তার এই আত্মহত্যার জন্য সে কাউকে দোষ দেয়নি৷

অর্জুনের বাড়ি ব্যাঙ্গালোরে৷ পড়াশুনার সূত্রে সে মুম্বইয়ে এসে থাকত৷ এমনকি হোটেলে চেকইন করার সময় সে তার সমস্ত পরিচয়পত্র দিয়েই ঢুকেছিল৷ তবে জীবনের এই চরমতম সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে তার হাত কাঁপেনি একটুও৷ এমনকি পুরো ঘটনাটি সে ফেসবুক লাইভ করে৷ সেই ১মিনিট ৪৫সেকেন্ডের ভিডিওটিতে দেখা গিয়েছে সে অ্যালকোহল খাচ্ছিল এবং ক্রমাগত সে সিগারেটও খাচ্ছিল৷ এরপরই জানলার উপর দাঁড়িয়ে ঝাপ দেয় সে৷ তবে তার আগে বন্ধুদেরকে গুডবাই করতেও ভোলেনি সে৷

জেন ওয়াইয়ের কাছে এখন ফেসবুকই শেষ কথা৷ বাসে ট্রেনে চলতে ফিরতে একমাত্র সঙ্গী এই ফেসবুক৷ আর তারই নিত্যনতুন ফিচারের আবির্ভাবে বেড়ে চলেছে অপরাধের সংখ্যাও৷ আর সেই ব্যাপারেই এই প্রবণতা কাটাতেই একটি অভিনব উদ্যোগ নিতে চলেছেন মার্ক জুকারবার্গ৷ এর আগেও ফ্লোরিডায় এমনই একটি ঘটনা ঘটে৷ এছাড়াও আরও একাধিক প্রবণ কাজ ঘটে সে জন্যই কৃত্রিম ব্যবহারকারীদের মাধ্যমে নজর রাখার জন্য বিশেষ ফিচারের ব্যবস্থা আনছে ফেসবুক৷ এরফলে ব্যবহারকারীদের উপর নজর রাখতে পারবে ফেসবুক৷

কিছুদিন আগেই লোকসভায় আত্মহত্যা নিয়ে একটি বিল পাস হয়৷ সেই মানসিক স্বাস্থ বিলে শাস্তিযোগ্য অপরাধের তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয় নিজেকে শেষ করে দেওয়ার ইচ্ছে৷ বরং এটিকে মানসিক ব্যাধি হিসেবে চিহ্নিত করেছেন চিকিৎসকেরা৷ একটি সমীক্ষায় উঠে এসেছিল, বিশ্বে প্রতি ৪০ সেকেন্ডে একজন করে আত্মহত্যা করে৷ মানসিকভাবে ভেঙে পড়লেই আত্মহত্যার পথ বেছে নেন৷