স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: বৃহস্পতিবারের পর শুক্রবারও দিঘার হোটেলে ঘটল পর্যটক যুবকের অস্বাভবিক মৃত্যুর ঘটনা। এদিন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন সাহিনসা দেহু (২২)। তাঁর বাড়ি নদিয়ার তেহট্টের কানাইনগরে।

মৃতের নাবালিকা প্রেমিকাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে দিঘা মোহনা থানার পুলিশ। জেরায় সে জানিয়েছে, সাহিনসা বিবাহিত। তার দুই সন্তানও আছে। তবে সেকথা লুকিয়ে তার সঙ্গে প্রেম করছিল সে। দিঘায় বিয়ের জন্য এসেছিল তারা।

আরও পড়ুন : ‘মমতার বাংলা’তেই শান্তিতে আছেন সংখ্যালঘুরা

কিন্তু ঘটনাক্রমে সাহিনসার বিয়ে-সংসারের কথা জেনে যায় নাবালিকা। তারপরই বচসা শুরু হয় যুগলের। এদিন বিকেলের পর ঘুমিয়ে ছিল দুজন। নাবালিকা ঘুমিয়ে পড়লে সিলিং ফ্যানে ফাঁস লাগিয়ে দেয় সাহিনসা। মেয়েটি তা দেখতে পেয়েই চিৎকার শুরু করে৷

কোনও রকমে নামিয়ে আনা হয় সাহিনসাকে৷ বিছানায় শুইয়ে হোটেলের কর্মীদের ডাকে মেয়েটি৷ হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে সাহিনসাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

বুধবার এই যুগল দিঘার হোটেলে উঠেছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ। দিঘা থানা ওসি বাসুকিনাথ ব্যানার্জী জানান, ঘটনার খবর পেয়ে হোটেল থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে সাহিনসার মৃত্যু হয়। হোটেলটিকে সিজ করা হয়েছে। সেই সাথে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।