পানাজি: মোদী জমানায় বেকারত্ব বেড়ে যাওয়া নিয়ে অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির৷ কর্মসংস্থান নিয়ে কোনও প্রশ্নেরই মুখোমুখি তাঁরা হতে চান না৷ আর কেউ এই নিয়ে যদি প্রশ্ন করে তাহলে পড়তে হতে পারে শাস্তির মুখে৷ যেতে হবে শ্রীঘরে৷ যেমনটা হয়েছে বিজেপি শাসিত গোয়ায়৷

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে৷ রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিশ্বজিত রানের কাছে এক চাকরিপ্রার্থী জানতে চেয়েছিলেন তাঁর চাকরি কবে হবে? খোদ রাজ্যের মন্ত্রীকে এমন ‘সাহসী’ প্রশ্ন করার খেসারত দিতে হল ওই যুবককে৷ তাঁকে থানায় তুলে নিয়ে যায় পুলিশ৷ তাঁর বিরুদ্ধে সিআরপিসির ১৫১ ধারায় মামলা রুজু করা হয়৷ পরে অবশ্য জামিনে মুক্তি পায় সে৷

থানা থেকে ছাড়া পেয়ে ওই যুবক জানান, গত এক দশকের বেশি সময় ধরে তিনি বিশ্বজিত রানের অনুগামী৷ তাঁর দাবি, মন্ত্রী তাঁকে চাকরির প্রতিশ্রুতি দেন৷ কিন্তু বছরের পর বছর কেটে গেলেও চাকরি না মেলায় হতাশ৷ এরইমধ্যে বৃহস্পতিবার নর্থ গোয়া লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থীর প্রচারে ভালপই বিধানসভা কেন্দ্রে যান বিশ্বজিত রানে৷ সেখানে মন্ত্রীকে দেখতে পেয়ে পুরানো প্রতিশ্রুতির কথা মনে করিয়ে দেন ওই চাকরিপ্রার্থী৷ জানতে চান কবে পাবেন চাকরি? এই প্রশ্ন করায় তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷

এই ঘটনার পর মন্ত্রীর কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি৷ তবে বিজেপি নেতার ঘনিষ্ট মহল সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রশ্ন করারও একটা কায়দা থাকে৷ ওই যুবক অশিষ্ট আচরণ করে৷ তাই কেউ ওই যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায়৷ ভোটের সময় এমন ঘটনাকে নিজেদের প্রচারের কাজে লাগিয়েছে কংগ্রেসও৷ তোপ দেগে জানিয়েছে, বিজেপি ক্ষমতার অপব্যবহার করছে৷ রাজ্য কংগ্রেস মুখপাত্র জানান, হতাশায় ভুগছে বিজেপি৷ তাই ক্ষমতার অপব্যবহার শুরু করেছে৷ কংগ্রেস এই আচরণের নিন্দা করছে৷