স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: ছেলের হাতে নৃশংসভাবে খুন হলেন সৎমা। বুধবার এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বনবিহারী বোস রোডে।

মাকে খুন করার পরে হাওড়া থানায় এসে আত্মসমর্পণ করেন ছেলে। মাকে খুনের অভিযোগে চন্দন প্রসাদ চৌহানকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

আরও পড়ুন: পড়ুয়াদের ওষুধ মাটিতে পুঁতে দেওয়ার অভিযোগ ঘিরে রহস্য

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পারিবারিক অশান্তির জেরেই ছেলের হাতে নৃশংসভাবে খুন হন মা। পাঁচতলা ফ্ল্যাটের একতলায় থাকেন এরা। এদিন দুপুরে হাওড়া জুটমিল থেকে নিজের ডিউটি সেরে বাড়ি ফিরে এই ঘটনা দেখে অসুস্থ হয়ে সংজ্ঞা হারান মৃতা বাসন্তিদেবীর (৫০) স্বামী চন্দনের বাবা শিও প্রসাদ(৬০)।

শিও প্রসাদরা আদপে বিহারের জাহানাবাদের বাসিন্দা হলেও কর্মসুত্রে তিনি হাওড়ায় থাকেন পরিবার নিয়ে। বেশ কিছুদিন ধরেই পরিবারে অশান্তি চলছিল। শিও প্রসাদের দ্বিতীয়পক্ষের স্ত্রী মৃতা বাসন্তীদেবী। তার তিন মেয়ে। তাদের বিয়ে হয়ে গেছে। শিও প্রসাদের প্রথম পক্ষের স্ত্রীর দুই ছেলে ও এক মেয়ে। তার মধ্যে চন্দন ছোট ছেলে। তবে অশান্তি ঘরের ভেতরেই ছিল এতদিন।

আরও পড়ুন: কলেজে ভরতির দাবিতে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানতে পেরেছে, চন্দনের বিয়ে হয়। পরে সেই বিয়ে ভেঙেও যায়। মাস কয়েক আগে চন্দন আবার বিয়ে করেছিলেন। বাবা হাওড়া জুট মিলের কর্মী ছিলেন। বর্তমানে তিনি অবসরপ্রাপ্ত। ছেলে হাওড়া জুট মিলের অস্থায়ী কর্মী। এদিন সকালে শাবল জাতীয় কিছু দিয়ে আঘাত করে মাকে চন্দন হত্যা করে বলে অভিযোগ।