মুম্বই- জেলবন্দি অবস্থাতেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তেলুগু কবি তথা সমাজকর্মী ভারভারা রাও। মুম্বইয়ের তালোজা সংশোধনাগারে বন্দি ছিলেন তিনি। চিকিৎসার জন্য যাতে ভারভারা রাওকে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় অথবা পরিবারকে চিকিৎসা করানোর সুযোগ করে দেওয়া হয় সেই ব্যাপারে পরিবার আর্জি জানিয়েছিলেন কবির স্ত্রী ও কন্যা।

মুম্বইয়েরই এক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য তাঁকে ভর্তি করা হয়েছে। এবার ভারভারা রাওয়ের মুক্তির দাবিতে দেশের তরুণ কবিরা সরব হলেন। দেশের তরুণ কবিরা ভারভারা রাওকে মুক্তির দাবিতে একটি পাবলিক স্টেটমেন্ট প্রকাশ করেছেন।

সেই পাবলিক স্টেটমেন্টে তরুণ প্রজন্মের কবিদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, “আমরা দেশের তরুণ কবি হিসেবে বলছি, ভারভারা রাওয়ের উপর আক্রমণকে আমার আমাদের এবং আমাদের মনন, কলম ও দৃষ্টিভঙ্গির উপর আক্রমণ হিসেবে দেখছি।” ভারতের সাহিত্যে ভারভারা রাওয়ের অবদান কী রূপ তার বর্ণনা দেওয়ার সঙ্গে কবির বর্তমান শারীরির অবস্থার কথাও এই বিবৃতিতে তুলে ধরেছেন তরুণ কবিরা। প্রবীণ কবিকে কতবার যুক্তিহীন মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে সেই বিষয়টিরও উল্লেখ রয়েছে বিবৃতিতে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “তাঁর বয়স ৮০। তাঁর পরিবার প্রেস নোটের মাধ্যমে এও বলেছে, ভারভারা রাওকে জেলের মধ্যে মরতে দেবেন না। তিনি সত্যিই খুবই অসুস্থ মে মাসের প্রথম দিকে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন।

ওঁর সহ-বন্দিরাও জানিয়েছেন শারীরিক অবস্থা ও স্নায়ুরোগের জন্য জরুরি অবস্থায় ওঁর চিকিৎসার প্রয়োজন আছে। ক্ষমতার দিকে যাঁরা রয়েছে, তাঁদের দিকে একজন কবি হয়ে প্রশ্ন তোলায় তাঁকে জেলে থাকতে হচ্ছে, এ বিষয়টি স্পষ্ট। আমরা তরুণ প্রজন্মের কবি হিসেবে বুঝি মানুষের হয়ে ক্ষমতার দিকে প্রশ্ন ছুড়ে দেওয়া কতটা গুরুত্বপূর্ণ। এটা আমাদের দায়িত্বও।”

এই তরুণ প্রজন্মের কবিদের মধ্যে রয়েছেন এনআরসি-সিএএ বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম কবি-সমাজকর্মী আমির আজিজ। তাঁর লেখা ‘সব ইয়াদ রাখা জায়েগা’ কবিতাটি মুহূর্তে লোকমুখে ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়াও রয়েছেন, নাবিয়া খান, কৌশিক রাজ, মেঘনা প্রকাশ, ইকরা খিলজি-সহ আরও অনেকে। ২০১৮ সালে ভীমা কোরেগাঁও মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছিল ভারভারা রাওকে। তখন থেকে বহুবার জামিনের আর্জি জানালেও তা খারিজ হয়ে যায়।

এমনকী ২৮ মে অসুস্থ হয়ে পড়ায় জেজে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল তাঁকে। তিন দিন পরে ফের জেলে নিয়ে আসা হয় প্রবীণ কবিকে। জানিয়েছেন তাঁর স্ত্রী হেমলতা। করোনা আবহেও তাঁর জামিনের আর্জি খারিজ করা হয়। জানা গিয়েছে, তাঁর শারীরিক অবস্থা এতই খারাপ যে তিনি হ্যালুসিনেট করছেন এবং কথায়ও অসংগতি দেখা যাচ্ছে.

*PUBLIC STATEMENT FROM YOUNG POETS OF THE COUNTRY URGING IMMEDIATE RELEASE OF PEOPLE'S POET VARAVARA RAO*We the…

Aamir Aziz यांनी वर पोस्ट केले मंगळवार, १४ जुलै, २०२०

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ