ক্রমশ বাড়ছে হলুদ ধাতুর দাম৷ ধনতেরস বা দিওয়ালিতে সোনা কেনা অনেকেই শুভ বলে মনে করেন৷ সেই সময় অনেক মধ্যবিত্তও চান অল্প হলেও কিছু সোনা কিনে রাখতে৷ কিন্তু এবছর সেই সাধপূরণ অনেকটা স্বপ্নের মত হতে চলেছে৷ কারণ ২০১৯ সালের দিওয়ালিতে সোনার দাম ছুঁতে চলেছে ভরি প্রতি ৪০ হাজার টাকা৷

বিশেষজ্ঞদের মতে এই দাম বৃদ্ধি সর্বকালীন সর্বোচ্চ৷ ইতিমধ্যেই মুম্বই ও চেন্নাইয়ে সোনার দাম ৩৯ হাজার ছুঁয়েছে৷ এবার তা এগোচ্ছে ৪০ হাজারের দিকে৷ ফলে মাথায় হাত মধ্যবিত্তদের৷ এই আকাশ ছোঁয়া দামের ফলে ক্রেতার সংখ্যায় বেশ ভালো মত ঘাটতি পড়তে চলেছে বলে আশংকা করা হচ্ছে৷

বর্তমানে বিশ্ববাজারে সোনার চাহিদা বেড়েছে শেয়ার বাজারে টালমাটাল পরিস্থিতির জন্য৷ সেই দিকে লক্ষ্য রেখেই দাম বাড়ছে এই মূল্যবান ধাতুর৷ চলতি বছরের অক্টোবরেই ১০ গ্রাম সোনার দাম ছুঁতে পারে ৩৭,৯৯৫ টাকা৷

আরও পড়ুন : বন্ধ হতে চলেছে এসবিআই ডেবিট কার্ড, নয়া সমস্যায় গ্রাহকরা

জুলাই মাসেই এক ধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে যায় সোনার মূল্য৷ মাত্র ১০ গ্রাম সোনার দাম গিয়ে পৌঁছয় ৩৬ হাজার টাকার কাছাকাছি। শুধু সোনা নয়, পাল্লা দিয়ে ক্রমশ বাড়তে থাকে রূপোর দামও। যেভাবে সোনা এবং রুপোর দাম বাড়ছে তাতে এই দর রেকর্ড বলেই মনে করছেন বিক্রেতারা। বিশেষ করে বিগত বছরগুলির ক্ষেত্রে এই বছর বিশেষ করে বিয়ের মরশুমে যেভাবে সোনা এবং রুপোর দাম বাড়ছে তাতে তা রেকর্ড হিসাবেই দেখছেন অনেকে।

সোনার শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বেড়ে হয়েছে ১২.৫ শতাংশ৷ মঙ্গলবার কলকাতায় সোনার দাম ছিল ৩৭ হাজার টাকা৷ দিল্লিতে ৩৭ হাজার টাকা ও মুম্বইতে ৩৬,৬০০ টাকা দাম৷ চেন্নাইতে সেখানে ১০ গ্রাম সোনার দাম ৩৫,৮৪০ টাকা৷ ২০১৩ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে সোনার দাম ১৭ শতাংশ বেড়েছে বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা৷ যা রীতিমত চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে মধ্যবিত্তের কপালে৷