ইউটিউব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল কলম্বিয়ান সেক্স ট্যুরিজম সংস্থার একটি ভিডিও৷ এমনকি বন্ধ করে দেওয়া হল তাদের অ্যাকাউন্টটিও৷ অ্যাকাউন্টটির নাম গুড গার্লস কোম্পানি৷ কিন্তু কি ছিল সেই ভিডিওতে?

সমুদ্রতটে সেক্সের স্বাদ অনুভব করতে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল গুড গার্লস কোম্পানি৷ কলম্বিয়ার দ্বীপে সেই দ্বীপে সেক্স অ্যান্ড ড্রাগস হলিডে চলছিল৷ এই অনুষ্ঠান উপলক্ষে সমুদ্রের তীরে অবাধে চলছিল সেক্স৷ এমনকি ওই সংস্থা থেকে পছন্দমতন প্রস্টিটিউট দেওয়ারও ব্যবস্থা ছিল৷ প্রায় তিন দিন ধরে চলে এই বিশেষ সেক্স হলিডে৷ তিনদিনের এই সমগ্র সেক্সের অনুষ্ঠানটি ভিডিও করে ইউটিউবে দেওয়া হয়৷ এই বিশেষ ভিডিওটি সেক্স আইল্যান্ড এক্সপেরিয়েন্স নামে ইউটিউবে দেওয়া হলেই মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় সেটি৷

ভিডিওটিতে অত্যন্ত ঘনিষ্ট অবস্থায়, নগ্ন ও বিকিনি পরে সমুদ্রতটে ঘুরে বেরাতে দেখা গিয়েছে সকলকে৷ তবে, শুধু মদ্যপান কিংবা সেক্সেই আটকে ছিল না এই বিশেষ হলিডে৷ দেদারে চলছিল মাদক সেবনও৷ ইউটিউবের নিয়ম লঙ্ঘন করাতেই সরিয়ে দেওয়া হয় ভিডিওটি৷ এমনকি সাসপেন্ড করে দেওয়া হয় গুড গার্লস কোম্পানির অ্যাকাউন্টটি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.