বাড়িই হল আপনার পছন্দের একমাত্র ঠিকানা। রোজ হাড়ভাঙা পরিশ্রম শেষে বাড়ি ফিরেই সবাই একটু আরাম খোঁজেন। তাই আপনার ঘরটিও আকর্ষণীয় হওয়া প্রয়োজন। ঘরের সাজসজ্জা ভালো হলে তা আপনার মনেও গভীরভাবে ছাপ ফেলে। সার্বিকভাবেই যা আপনার ও আপনার পরিবারের অন্য সদস্যদের মানসিক শক্তির বিকাশ ঘটাতে সাহায্য করে। তাই কম খরচে কীভাবে আপনি আপনার প্রিয় বাড়ির অন্দরসজ্জা করতে পারেন সেই সম্পর্কে রইল কয়েকটি টিপস।

আমরা চাইলেই একটু বুদ্ধি খাটিয়ে খুব কম খরচে এবং নতুন আঙ্গিকে নিজের ঘর সাজিয়ে নিতে পারি। প্রথমেই বদলাতে হবে ঘরের রং। ঘরকে আকর্ষণীয় করে তুলতে রং কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। তাই ঘরের আকারকে প্রাধান্য দিয়ে রং নির্বাচন করুন। ঘরে হালকা রং ব্যবহার করাই ভালো। এতে ঘর বড় দেখাবে। একইসঙ্গে নতুন রং ঘরে করালে ঔজ্বল্যও বাড়বে। তাই আজই ঘরের গাঢ় রং বদলে নিন।

ঘরের রঙের পাশাপাশি আপনাকে নজর দিতে হবে আসবাবপত্রের দিকেও। ঘর সাজাতে কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারে সুন্দর একটি সোফা। ঘরের মাপ অনুযায়ী সোফা কিনুন। দামী সোফা দিয়ে ঘর সাজাতে হবে এমন কোনও কথা নেই। এখন মেঝেতে বসার ব্যবস্থাও থাকছে। আপনার পছন্দ অনুযায়ী অনলাইন সাইট থেকে তেমনই কোনও বিকল্প আজই বেছে নিন। অল্প খরচে ঘরের শোভা বাড়ি তুলুন। এছাড়াও সোফার রং অনুযায়ী ব্যবহার করতে পারেন কুশন। রঙিন কুশন আপনার ঘরের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। হালকা রহের সোফার সঙ্গে রঙিন কুশন ভালো মানাবে।

ঘর সাজাতে ল্যাম্প ব্যবহার করতে পারেন। আজকাল নানা ডিজাইনের ল্যাম্প একাধিক সংস্থা বিক্রি করছে। ল্যাম্প আপনার ঘরের আভিজাত্যের দিকটি ফুটিয়ে তুলতে সাহায্য করবে। আপনার বাজেট অনুযায়ী অনলাইন সংস্থা থেকে যে কোনও কোম্পানির ল্যাম্প কিনে ফেলতে পারেন। আজকাল একাধিক সংস্থা বিরাট ছাড়ে ল্যাম্প বিক্রি করছে। তেমনই কোনও একটি ল্যাম্প বেছে নিন আপনার জন্য। এছাড়াও ঘরের তাকে রাখতে কিনে ফেলুন সোপিস। নানা ধরনের সোপিস আপনার ঘরের শোভা বাড়িয়ে তুলবে। এর দামও আপনার বাজেটের মধ্যেই। ঘর সাজাতে সোপিসের চেয়ে সস্তা জিনিস বোধ হয় আর নেই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।