লখনউ: প্রত্যাশা মতোই সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের আগে গুরুত্ব পাচ্ছে সন্ত্রাস আর সেনা। যা ফের প্রমাণ হয়ে গেল উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কথায়।

আরও পড়ুন- উইকিপিডিয়ায় উর্মিলার নাম বদলে করা হল ‘মরিয়াম আখতার মীর’

রবিবার উত্তর প্রদেশের গাজিয়াবাদে এক নির্বাচনি জনসভায় হাজির ছিলেন যোগী আদিত্যনাথ। সেই সভায় দাঁড়িয়ে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে বিরোধী কংগ্রেস শিবিরকে আক্রমণ করেন যোগী আদিত্যনাথ।

আরও পড়ুন- হারের ভয়ে আমেঠি ছেড়ে কেরলে যাচ্ছেন রাহুল: অমিত শাহ

এদিন বক্তব্য কংগ্রেসকে আক্রমন করতে গিয়ে সন্ত্রাসবাদ এবং সেনাবাহিনীর সাফল্যের প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন যোগী। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে সেনাবাহিনীর সাফল্যের অন্যতম কারিগর বলে দাবি করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন- টালা ব্রিজে বিস্ফোরক উদ্ধারের ঘটনায় ভিন রাজ্য থেকে গ্রেফতার এক

যোগী আদিত্যনাথ এদিনের সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, “কংগ্রেসের লোকজন আতঙ্কবাদীদের বিরিয়ানি খাওয়ায়। আর, নরেন্দ্র মোদীর সেনা গুলি আর গোলা দেয়।” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “কংগ্রেসের লোকজন মাসুদ আজহারের মতো লোকদের সম্মান দিয়ে কথা বলে।” এটাই বিজেপি এবং কংগ্রেসের মধ্যে পার্থক্য বলে দাবি করেছেন আদিত্যনাথ।

আরও পড়ুন- জইশ-ই-মহম্মদ আইএসআইয়ের বিষাক্ত হাত, ভারতের পাশে আফগানিস্তান

কংগ্রেসের রবিবারের সভা থেকে পূর্বতন সপা সরকারকেও আক্রমণ করেছেন যোগী। তিনি বলেছেন, “আগে উত্তর প্রদেশে সাধারণ মানুষ গড়ুর গাড়িতে করে যাতায়াত করতো। পরে অবৈধ কসাইখানা চালু করে গোহত্যা করা হয়। ভিসারাতে কী হয়েছিল তা সবাই জানে।” যোগী আদিত্যনাথের অভিযোগ, “এভাবেই অখিলেশ যাদব পরিচালিত সমাজবাদী পার্টির সরকার মানুষের আবেগ নিয়ে খেলা করেছে। আমাদের সরকার আসার পরে সব অবৈধ কসাইখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।”

আরও পড়ুন- ৫৬ জন নেতাই প্রধানমন্ত্রী হতে চায়, মহাজোটকে কটাক্ষ শিবসেনার