লখনউ: হেলিকপ্টার নামতে দেয়নি৷ তো কিছু হয়েছে? সড়কপথে রাজ্যে আসছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে এই খবর৷ এমন এক সময়ে যোগী বঙ্গে আসছেন যখন রাজ্যে মোদী বিরোধীতার সুর সপ্তমে চড়িয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর সমর্থনে রাজ্যে ছুটে এসেছেন একঝাঁক বিরোধী নেতা-নেত্রী৷ এই পরিস্থিতিতে যোগীর রাজ্যে আগমন বাংলার রাজনীতিতে উত্তাপের আঁচ আরও বাড়িয়ে দেবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷

মঙ্গলবার যোগী আদিত্যনাথ আসবেন পুরুলিয়ায়৷ এখানে জনসভা করবেন তিনি৷ তবে এবার আর আকাশপথে নয়৷ আসবেন সড়কে৷ সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশ থেকে বিমানে ঝাড়খণ্ড আসবেন যোগী৷ সেখান থেকে গাড়িতে যাবেন পুরুলিয়ায়৷ কলকাতার পুলিশ কমিশনারের বাড়িতে সিবিআই অভিযানকে কেন্দ্র করে রাজ্য ও কেন্দ্র সংঘাত এখন তুঙ্গে৷ বিজেপি তথা মোদীর বিরুদ্ধে সিবিআইকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করার অভিযোগ তুলে সোচ্চার তৃণমূল৷ আর ঠিক সেই সময়ে বিজেপির প্রথম সারির কোনও নেতা আসছেন রাজ্যে৷ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, পুরুলিয়ার জনসভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তোপ দাগবেন যোগী৷ এটা স্বাভাবিক৷ তবে তাঁর এই সভার পর কোন খাতে বইবে বঙ্গের রাজনীতি সেটাই হবে দেখার৷

এর আগে যোগীর দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে জনসভা করতে আসার কথা ছিল৷ কিন্তু তাঁর হেলিকপ্টার নামার অনুমোদন না মেলায় শেষমেশ বাতিল করতে হয় সেই সভা৷ তবে টেলিফোনের মাধ্যমে জনসভায় বক্তব্য রাখেন যোগী৷ জানান, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার কখনই মানুষের কন্ঠরোধ করতে পারবে না৷ চপার নামার অনুমতি না মেলায় বাঁকুড়াতে আসা হয়নি যোগীর৷