লখনউ: উত্তর প্রদেশে দিওয়ালি পালিত হয় ধুমধামভাবে। তবে চলতি বছরে তা আরও দ্বিগুণ হতে চলেছে। দিওয়ালি উপলক্ষে যোগী আদিত্যনাথ সরকার শনিবার যে ‘দীপোৎসবে’র আয়োজন করেছে সেখানে ৫.৫১ লাখ প্রদীপ জ্বালিয়ে মেতে উঠবে আলোর উৎসবে। এদিন ২২৬ কোটির প্রকল্পের ঘোষণা করবে যোগী সরকার।

দীপাবলির এই শুভ উৎসবে উপস্থিত থাকবেন উত্তর প্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দিবেন প্যাটেল, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং রাজ্যের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পদের মন্ত্রীরা। এছাড়াও সেখানে থাকবেন উত্তর প্রদেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিক্তরা।

উত্তর প্রদেশ সরকারের মুখপাত্র বলেন, “শনিবার সকাল ১০টা থেকে ১২টার মধ্যে অযোধ্যাতে ভগবান রামের জন্য শোভাযাত্রা বেড়োবে। সাকেত কলেজ থেকে রামকথা পার্ক পর্যন্ত এই শোভাযাত্রা যাবে যেখানে অন্যান্য দেশের শিল্পীরাও যোগদান করবে।”

তিনি বলেন, “সাংস্কৃতিক সন্ধ্যাতে রাম-সীতার একটি প্রতীকি প্রদর্শনী হবে। বিকেল ৪টা ১৫ থেকে ৪টে ৪০ মিনিটের মধ্যে ভগবান রাম কেন্দ্রিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান হবে।” এই অনুষ্ঠানসূচিকে কেন্দ্র করেই সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প ঘোষণা করা হবে। যেখানে আমন্ত্রিতরা তাঁদের বক্তব্য রাখবেন।

এই প্রসঙ্গে সরকারি মুখপাত্র শ্রীকান্ত শর্মা বলেন, “গত দুই বছর ধরে উত্তরপ্রদেশের পর্যটন বিভাগ এই ‘দীপোৎসব’ আয়োজন কর। এখন থেকে এটি একটি রাজ্য সরকারের অনুষ্ঠান হিসেবেই গণ্য হবে।”

শ্রীকান্ত শর্মা আরও বলেন, রাজ্য সরকার চলতি বছরের দীপোৎসবের জন্য ১৩৩ কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে। এই বছরের ২৬ অক্টোবর পালিত হচ্ছে দীপোৎসব। যাতে ৫.৫১ লক্ষেরও বেশি মাটির প্রদীপ জ্বালানো হবে। দীপোৎসব যেহেতু এখন থেকে একটি রাজ্য সরকারের আয়োজিত অনুষ্ঠান তাই এই অনুষ্ঠানে ব্যয় করা তহবিল নির্দিষ্ট নিয়ম অনুসারেই অডিট করা হবে। রাজ্য সরকার ‘দীপোৎসবের’ জন্য ঢালাও ব্যবস্থাও গ্রহণ করেছে। আগামী ২৬ অক্টোবর মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এই অনুষ্ঠানের সূচনা করবেন। ফিজি প্রজাতন্ত্রের সংসদের স্পিকার এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন।

সাত দেশের রাম লীলা এই অনুশঠানের মূল আকর্ষণ হতে চলেছে। এগারোটি ট্যাবলোতে ভগবান রামের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের দিক তুলে ধরা হবে। এই অনুষ্ঠানটিকে স্টেট ফেয়ার হিসেবে বলা হয়েছে। পাশাপাশি, ২৫০০ বেশির শিশু ভগবান রামের জীবনের বিভিন্ন দিক এবং ওঠানামাকে ছবির মাধ্যমে তুলে ধরবে।