লখনউ: ‘আজাদি’ স্লোগানে ঘুম উড়েছে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। লখনউয়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির বিরোধিতায় জমায়েত থেকেই উঠছে ‘আজাদি’ স্লোগান। এতেই বেজায় চটেছেন যোগী আদিত্যনাথ। এবার থেকে ‘আজাদি’ স্লোগান দিলেই তা দেশদ্রোহীতার সামিল বলে গণ্য করা হবে, বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থারও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী।

দেশের অন্যান্য একাধিক রাজ্যের পাশাপাশি সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে যোগীরাজ্যেও লাগাতার বিক্ষোভ চলছে। সেই বিক্ষোভ-আন্দোলনে রাশ টানতেই এবার তৎপর হল উত্তরপ্রদেশ সরকার। আন্দোলন দমনে উঠে-পড়ে লেগেছেন স্বয়ং যোগী। লখনউয়ের ক্লক টাওয়ারের নিচে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় বহু মানুষ অবস্থান বিক্ষোভে বসেছেন। একইসঙ্গে এনআরসিরও তীব্র প্পতিবাদ জানানো হচ্ছে সেই জমায়েত থেকে। বিক্ষোভকারীদের মুখে উঠে আসছে ‘আজাদি’ স্লোগানও। এতেই প্রবল আপত্তি উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। হুঁশিয়ারি দিয়ে যোগী বলেছেন, যাঁরা বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ‘আজাদি’ স্লোগান দেবেন তাঁদের ‘দেশদ্রোহী’ বলে গণ্য করা হবে।

উত্তরপ্রদেশের কানপুরে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে একটি সমাবেশে যোগ দিয়ে যোগী আদিত্যনাথ বলেন, ‘প্রতিবাদের নামে কেউ যদি আজাদি স্লোগান দেন তবে তা দেশদ্রোহিতা বলে গণ্য করা হবে। রাজ্য সরকার কঠোর পদক্ষেপ করবে। দেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে দেশের বিরুদ্ধেই ষড়যন্ত্রের চেষ্টা মেনে নেওয়া হবে না।’

এর আগেও উত্তরপ্রদেশে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ দমনের চেষ্টা করেছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করেছে। এমনকী পুলিশের বিরুদ্ধে গুলি চালানোরও অভিযোগ ওঠে।

সম্প্রতি লখনউয়েই নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কড়া সওয়াল করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বিরোধীদের যতই আপত্তি থাকুক, দেশে সিএএ লাগু হবেই বলে সাফ জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এব্যাপারে কোনও আপত্তিই বরদাস্ত করা হবে না বলেও জানিয়েছেন অমিত শাহ। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন দেশজুড়ে প্রয়োগ করা হবে বলে জানান শাহ।

অমিত শাহের মন্তব্যের পরই এবার সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার হঁশিয়ারি যোগী আদিত্যনাথের।