মুম্বই: বৃহস্পতিবার রিলায়েন্স গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান অনিল আম্বানিকে ইয়েস ব্যাংক কাণ্ডে যোগাযোগ থাকার অভিযোগে ৯ঘন্টা ধরে জেরা করলো এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। তদন্তকারী এজেন্সির সন্দেহ ইয়েস ব্যাংক প্রতিষ্ঠাতা রানা কাপুরের টাকা পাচারের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে অম্বানির। আজকের এই দীর্ঘ জেরার পর ফের এই শিল্পপতিকে ৩০ মার্চ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকেছে ইডি।

এদিকে এসএল গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান তথা রাজ্যসভার সাংসদ সুভাষচন্দ্রকে ১৮ মার্চ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছিল। কিন্তু তিনি সংসদ অধিবেশন চলছে এই অজুহাত দেখিয়ে তা এড়িয়ে যান। এরপর তাকে ফের ২১ মার্চ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠিয়েছে এই তদন্তকারী এজেন্সি। ইডি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, আম্বানির বয়ান এদিন রেকর্ড করা হয়েছে প্রিভেনশন অফ মানি লন্ডারিং অ্যাক্ট অনুসারে।

এই বিশিষ্ট শিল্পপতি এদিন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের বালার্ড এস্টেটের অফিসে আসেন সকাল সাড়ে নটা নাগাদ আর সেখান থেকে বের হন সন্ধে সাতটায়।

এই আম্বানি গোষ্ঠীর নয়টি সংস্থায় এখন রীতিমতো ঋণ ভারে জর্জরিত। এই শিল্প গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অভিযোগ ঋণের টাকা সময়মতো শোধ করতে ব্যর্থ হচ্ছে । নানা মহল এই শিল্প গোষ্ঠীকে অনেকাংশেই দায়ী করছে ইয়েস ব্যাংকের বর্তমান ‌বেহাল দশার জন্য। কারণ সংকটে পড়া এই বেসরকারি ব্যাংকটি‌ থেকে এই শিল্প গোষ্ঠীর ঋণের পরিমাণ ১২৮০০টাকা কোটি টাকা।