শ্রীনগর: কাশ্মীরে নিজের বাসভবন থেকে গ্রেফতার করা হল বিচ্ছিন্নতাবাদী মুসলিম নেতা ইয়াসিন মালিককে৷ পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলাতে ৪০জন সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যুর পর এই সব হুরিয়ত নেতার নিরাপত্তা তুলে নিয়েছিল ভারত সরকার৷

মাইসুমায় মালিকের বাসভবন থেকেই কাশ্মীরের পুলিশ গ্রেফতার করেছে তাকে৷ গ্রেফতারের পর ইয়াসিনকে কোথিবাগ পুলিশ স্টেশনে নিয়ে আসা হয়েছে৷ শুক্রবার গভীর রাতে হঠাৎই গ্রেফতার করা হয়েছে জন্মু কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্ট নামের বিছিন্নতাবাদী সংগঠনের প্রধান ইয়াসিন মালিককে৷ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে জঙ্গীরা কাশ্মীরের বিছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে বড় কিছু করতে চাইছে৷ তারই আঁচ পেয়ে আগে থেকে তৈরি হচ্ছে ভারত৷

তবে এই প্রথমবার নয় এর আগেও অনেকবার কাশ্মীরের আইন শৃঙ্খলার পরিবেশ নষ্ট করার অভিযোগ উঠেছিল মালিকের বিরুদ্ধে৷  রাজ্যপাল শাসিত উপত্যকায় কোনওরকম ঝুঁকি নিতে চাইছেব না পুলিশ৷ কয়েকমাস আগেও শ্রীনগরে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মিছিল চলাকালীন মালিককে গ্রেফতার করে শ্রীনগর পুলিশ৷ সে সময়ও তাকে কোথিবাগ পুলিশ স্টেশনেই নিয়ে যাওয়া হয়েছিল৷

প্রসঙ্গত সম্প্রতি একটি গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এসেছে গত বছর ডিসেম্বর মাসে ২১জনের একটি জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গী দল কাশ্মীরে প্রবেশ করেছে৷ যেখানে তিনজন আত্মঘাতী জঙ্গীও রয়েছে৷ একটি কাশ্মীর উপত্যকায় এবং দুটো কাশ্মীরের বাইরে, মোট তিনটে বিস্ফোরণ ঘটানোর প্ল্যান রয়েছে এই জঙ্গীদের৷ বিশেষজ্ঞদের মতে সেই কারণেই কাশ্মীরে শান্তি শৃঙ্খলা এবং নিরাপত্তায় কোনও ত্রুটি রাখতে চাইছে না মোদী সরকার৷