মুম্বই: আট বছর আগে শেষবার আইপিএলে হোম ফ্যাঞ্চাইজি মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে শেষবার ব্যাট হাতে নেমেছিলেন তিনি। তবু আইপিএলের সবচেয়ে সফল ফ্র্যাঞ্চাইজিতে এখনও সমানভাবে প্রাসঙ্গিক সচিন রমেশ তেন্ডুলকর। মাঝের সময়ে মুম্বই ফ্র্যাঞ্চাইজির ট্রফি ক্যাবিনেটে শোভা পেয়েছে চার-চারটি আইপিএল ট্রফি, যার কোনওটিই ক্রিকেটার হিসেবে ছুঁয়ে দেখার সৌভাগ্য হয়নি কিংবদন্তির। তবে অবসরোত্তর সময়ে অন্যভাবে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একশো শতরানের মালিক।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে এক অনুরাগী প্রশ্ন করেছিলেন, যদি অতীতের কোনও ক্রিকেটারকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হত দলে তাহলে আপনি কাকে ফিরিয়ে আনতেন। উত্তরে এতটুকু কালবিলম্ব না করে প্রত্যাশিতভাবেই রোহিত বেছে নেন সচিন রমেশ তেন্ডুলকরকে। রোহিত অনুরাগীকে বলেন, ‘আমি যদি পারতাম তাহলে একজন নয় বরং দু’জন ক্রিকেটারকে দলে ফিরিয়ে আনতাম। তাঁরা হলেন এক এবং অদ্বিতীয় সচিন তেন্ডুলকর এবং শন পোলক।’ অনুরাগীর প্রশ্নে রোহিতের উত্তরে আবেগঘন মাস্টার-ব্লাস্টার পালটা লেখেন, ‘তোমার সঙ্গে যদি আবার ওপেনে নামতে পারতাম ব্যাপারটা জমে যেত।’ সব দেখেশুনে অনুরাগীরাও প্রতিক্রিয়া দিতে শুরু করেন গোটা ঘটনায়।

একজন যেমন লেখেন, ‘এমনটা হলে এই প্রজন্মের ক্রিকেট অনুরাগীদের কাছে বিষয়টা নয়নাভিরাম হত। মিড উইকেটের উপর দিয়ে রোহিতের শক্তিশালী হুক সঙ্গে ক্রিকেট ঈশ্বরের নিখুঁত কভার ড্রাইভ এবং স্ট্রেট ড্রাইভ। অভাবনীয়, ভাবলেই নস্ট্যালজিক লাগছে। সচিন স্যার দয়া করে একবার ফের মাঠে নামুন।’ উল্লেখ্য, দু’টো মরশুম একসঙ্গে মুম্বইয়ের হয়ে খেললেও কখনও ওপেনে দেখা যায়নি সচিন-রোহিত জুটিকে। সবমিলিয়ে সম্ভব নয় জেনেও অনুরাগীরা নিষ্ফল আবেদন করে চলেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

চুপ থাকেননি প্রোটিয়া কিংবদন্তি শন পোলকও। মজার রিপ্লাইয়ে তিনি বলেন, ‘যদি সম্ভব হয় তবে নেটে গিয়ে অনুশীলনে করে এবং ওয়ার্ক-আউট করে ফিট হতে রাজি।’ উল্লেখ্য, মুম্বই ইন্ডিয়ান্স জার্সিতে একমাত্র অভিষেক মরশুমেই ১৩ ম্যাচ খেলেছিলেন পোলক। একমাত্র মরশুমে মুম্বই ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে ১১ উইকেট নিয়েছিলেন প্রোটিয়া কিংবদন্তি। উল্লেখ্য, মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের সাম্মানিক মেন্টর পদে মাস্টার-ব্লাস্টার যেমন বহাল রয়েছেন তেমনই ২০১১ থেকে দলের বোলিং কোচ হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন পোলক।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও