নিউজ ডেস্ক: বিশ্বের সর্বোচ্চ আবহাওয়া স্টেশন বসল এভারেস্টের চুড়ায়। ইতিমধ্যেই সেই সাফল্যের খবর ঘোষণা করেছে ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক সোসাইটি।

আবহাওয়ার খবর পেতে নানরকম প্রযুক্তির সাহায্য নেন আবহবিদরা। তবে এভারেস্টে, যেখানে তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নীচে থাকে, সেখানে তাপমাত্রা পরিমাপ করতে অনেকটাই কষ্টের মুখে পড়তে হত আবহবিদদের। কিন্তু সেই সমস্যার সমাধান হল অবশেষে। বলা চলে পাকাপাকি সমাধান হয়ে গেল। এভারেস্টের চুড়ায় বসল বিশ্বের সর্বোচ্চ আবহাওয়া ষ্টেশন। ফলে খুব সহজেই মুশকিল আসান হবে সেখানকার আবহবিদদের।

এভারেস্টের চূড়ায় স্থাপন করা হয়েছে একটি সম্পুর্ণ স্বয়ংক্রিয় মেশিন। যা খুব সহজেই আবহাওয়ার খবর দেবে আবহবিদদের। তবে শুধু আবহবিদরাই নন, গবেষক, পর্বতারোহী এমনকি সাধারণ মানুষও এই স্বয়ংক্রিয় মেশিনটির দ্বারা উপকৃত হবেন। কারণ এই মেশিনেই ফুটে উঠবে পাহাড়ের রিয়েল-টাইম তথ্য।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিশ্বে প্রথম এত উচ্চতায় আবহাওয়া দপ্তর স্থাপন করা হল। ন্যাশানাল জিওগ্রাফিক সোশ্যাইটির মার্কেটিং এবং কমিউনিকেশনের ডিরেক্টর একটি সাক্ষাতকারে জানিয়েছেন, “এভারেস্টের বিভিন্ন উচ্চতায় বসানো হয়েছে এই স্বয়ংক্রিয় মেশিন। যার মধ্যে ৮,৪৩০ মিটার উচ্চতায় ব্যালকোনি এরিয়া এবং ৭,৯৪৫ মিটার উচ্চতায় সাউথ কোলে বসানো স্টেশন দুটি ইতিমধ্যেই চালু করা হয়েছে।”

এর পাশাপাশি অন্যান্য আবহাওয়া স্টেশনগুলির মধ্যে রয়েছে, ফোর্টসে (৩৮১০ মিটার উচ্চতা), এভারেস্ট বেস ক্যাম্প (৫৩১৫ মিটার উচ্চতা), এভারেস্ট বেস ক্যাম্প ২ (৬৪৬৪ মিটার উচ্চতা)। জানা গিয়েছে, এই প্রতিটি স্টেশনেই ধরা পড়বে পরিবেশের তাপমাত্রা, আপেক্ষিক আর্দ্রতা, বারোমেট্রিক প্রেসার, বাতাসের গতিবেগ, বাতাসের গতিপথ ইত্যাদি যাবতীয় বিষয় সম্পর্কিত তথ্য।