নিউইয়র্ক: যোগ ব্যায়ামের পীঠস্থান ভারতে নয়, বিশ্বের প্রথম যোগ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জলসে। ষষ্ঠ আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে নেওয়া প্রকল্প হিসেবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্মোচন হয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বেশ কিছু পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

দ্য বিবেকানন্দ যোগ ইউনিভার্সিটির ভার্চুয়াল এই উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন ভারতের বিদেশমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী ভি মুরলীধরণ ও বিদেশমন্ত্রকের স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারপার্সন পি পি চৌধুরী। নিউইয়র্কে অবস্থিত ভারতের কনসুলেট জেনারেল এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

ভারতীয় যোগগুরু এইচ আর নাগেন্দ্র দ্য বিবেকানন্দ যোগ ইউনিভার্সিটিরপ্রথম চেয়ারম্যান হিসেবে নিযুক্ত হলেন। ভার্চুয়াল বক্তব্যে মুরলীধরণ বলেন সারা বিশ্বের কাছে ভারতকে চিনিয়ে ছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ। ভারতের বিবেকের বাণী সেই সৌভ্রাতৃত্বের কথা শুনিয়েছিলেন তিনি। তাঁর নামে অণুপ্রাণিত এই বিশ্ববিদ্যালয় ভারতের যোগ বার্তার ঐতিহ্যকেই তুলে ধরবে।

তিনি আরও বলেন ভারতের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে আরও গৌরবান্বিত হবে বলে তিনি আশা করেন। মানসিক স্থিতি ও আবেগকে ধরে রাখতে সহায়তা করে যোগ। লস অ্যাঞ্জলসের এই যোগ বিশ্ববিদ্যালয় গোটা বিশ্বকে সেই শিক্ষাই দেবে।

এই বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ারম্যান নাগেন্দ্র ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর যোগ শিক্ষক। এদিন তিনি বলেন ১৮৯৩ সালে নিজের বিখ্যাত বক্তব্যের মাধ্যমে যোগের গুরুত্ব তুলে ধরেছিলেন বিবেকানন্দ। তাঁর অণুপ্রেরণা নিয়েই এই প্রতিষ্ঠান চালু করা হল। বিশ্বের কাছে স্বামীজির বার্তা পাঠানোই কাজ হবে এর।

এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভারতের সনাতন যোগাভ্যাসের শিক্ষা দেওয়া হবে। এই প্রসঙ্গে ভারতের কনসাল জেনারেল বলেন যোগ ব্যায়ামের গভীর সম্পর্ক রয়েছে এই নিউইয়র্ক শহরের।

এই শহরে বসেই যোগের ওপর বই লিখেছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ। ইতিমধ্যেই আমেরিকায় চার কোটি মানুষ যোগাভ্যাস করেন। এই নতুন বিশ্ববিদ্যালয় যোগ ব্যায়ামকে আমেরিকায় আরও জনপ্রিয় করে তুলবে বলেই মত অনেকের।

আমেরিকায় প্রথম যোগ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে শুনে তাকে ভারতের ‘গর্ব’ বলেও জানান যোগগুরু বাবা রামদেব। এই বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইন মাস্টারস প্রোগ্রাম চালু করতে চলেছে। ২০২০ সালের জন্য জমা পড়ছে আবেদনপত্রও। ভাচুর্য়াল ক্লাস শুরু হতে চলেছে অগাষ্ট মাসের ২৪ তারিখে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ