লন্ডন: উইম্বলডনে অঘটন অব্যাহত! মহিলা সিঙ্গলসের তৃতীয় রাউন্ডেই বিদায় নিলেন শীর্ষ বাছাই সিমোনা হালেপ৷ বিশ্বের ৪৮ নম্বর খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে তিন সেটের (৬-৩,৪-৬,৫-৭) লড়াই শেষে বশ্যতা স্বীকার করেন রোমানিয়ান তারকা৷

বিশ্বের এক নম্বর তারকাকে ছিটকে দিয়ে উম্বলডনে স্বপ্নের ম্যাচ জিতলেন তাইনিজ খেলোয়াড় সিয়ে সু-উই৷ প্রথম সেট হেরেও দুরন্ত লড়াই করে দু’ ঘণ্টা ২০ মিনিটের লড়াই জিতে নেন সু-উই৷ সেই সঙ্গে অল ইংল্যান্ড ক্লাবে প্রথমবার শেষ ষোলোয় পৌঁছলেন তিনি৷ চলতি বছরে রোলাঁ গারো চ্যাম্পিয়ন হালেপের বিদায়ের সঙ্গে উইম্বলডনে মহিলা সিঙ্গলসে প্রথম দশে থাকা একমাত্র রইলেন চেক প্রজাতন্ত্রের ক্যারোলিনা পিসকোভা৷

হালেপ ও সু-উই লড়াইয়ে টানটান উত্তেজনা ছিল৷ প্রথম সেট ৬-৩ জেতার পরও আধিপত্য ধরে রাখতে পারেননি হালেপ৷ ৬-৪ দ্বিতীয় সেট জিতে স্বপ্নের প্রত্যাবর্তন করেন তাইনিজ খেলোয়াড়৷ পরের সেটে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর ৭-৫ জিতে ম্যাচ পকেটে পুরে নেন সু-উই৷

হালেপের সার্ভিস ব্রেক করে প্রথমবার উইম্বলডনের প্রি-কোয়ার্টারে পৌঁছে যান তিনি৷ ম্যাচ জিতে সু-উই বলেন, ‘প্রথমবার বিশ্বের এক নম্বরের বিরুদ্ধে ম্যাচ জিতলাম৷ অসাধারণ অভিজ্ঞতা৷ হালেপ দারুণ প্লেয়ার৷ তবে গ্যালারি থেকে প্রচুর সার্পোট পেয়েছি, যা আমাকে লড়তে সাহায্য করেছে৷’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I