আবুধাবি: আপনি বিরিয়ানি খান তো, নাহলে অনেককেই তো বিরিয়ানি খেতে দেখেন। তা সেই বিরিয়ানির দাম কত? ৩০০,৪০০, ১০০০! তার বেশি না তো? কিন্তু এখানে যে বিরিয়ানির কথা বলা হচ্ছে সেটির দাম একেবারে আকাশ ছোঁয়া। এতে এমন ২৩ ক্যারেট সোনা রয়েছে যা আপনি খেতে পারেন। এই বিরিয়ানির নাম দ্য রয়েল গোল্ড বিরিয়ানি। এখন পর্যন্ত এটিই বিশ্বের সবচেয়ে দামি বিরিয়ানি।

একটা বড় সোনার থালায় ওই গোল্ড বিরিয়ানি পরিবেশন করা হয়। আপনার বিরিয়ানিতে আপনি কোন চাল খাবেন তা আপনি বেছে নিতে পারেন। বিরিয়ানি রাইস, হোয়াইট রাইস, জাফরান রাইস যেটা আপনার পছন্দ, সেটাই বাছতে পারেন। এর সঙ্গে দেওয়া হয়, বেবি পটেটো, ডিম সিদ্ধ, বাদাম ভাজা, পেঁয়াজ ভাজা ইত্যাদি।

আরও পড়ুন – রাস্তায় দুপক্ষের বেধড়ক মারপিট, ঝামেলার কারণ খোলসা করলেন ‘চাচা’

রয়েল গোল্ড বিরিয়ানির মোট ওজন ৩ কেজি। এর সঙ্গে আপনি পছন্দ মতো সস বেছে নিতে পারেন। বিরিয়ানির সঙ্গে সস শুনে আবার অবাক হবেন না। দিল্লি সহ উত্তর ভারতে এচল রয়েছে। সেখানকার বিরিয়ানিতে আলুও থাকে না। বিরিয়ানিতে আলু, এব্যাপারটা একেবারে কলকাতার নিজস্ব।

চাটনি, সস, রায়তা সহ একাধিক আইটেম পড়বে আপনার পাতে। এরপর যখন অবশেষে আসবে সেই বিরিয়ানি তখন দেখবেন এতে আছে ২৩ ক্যারেট সোনার স্তর। আপনি এই সোনার স্তরটি খেতে পারেন।

আরও পড়ুন – বেরোজগার সূচকে ত্রিপুরা দ্বিতীয়, বাংলায় প্রচারে এসে বিপ্লবের অস্বস্তি

দুবাইয়ের বোম্বাই বরো নামে একটি রেস্তোঁরায় মিলছে এই বিশেষ বিরিয়ানি। এটির এক প্লেটের দাম হাজার দিনার। অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় দাম ১৯ হাজার ৭০৭ টাকা। অর্থাৎ প্রায় ২০ হাজার টাকার কাছাকাছি। যদি আপনি এই বিরিয়ানি খেতে চান, তবে আপনাকে অবশ্যই দুবাইয়ের ট্যুর প্ল্যান করে ফেলতে হবে। আর যারা দুবাই এমনিতেই যাবেন বলে ভাবছেন, তাঁদের কাছে কিন্তু এ এক অতিরিক্ত পাওনা। মানে গোদা বাংলায় বললে “রথ দেখাও হবে আবার কলা বেচাও হবে।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।