লন্ডন: ফেভারিট তকমা নিয়ে ইংল্যান্ড পৌঁছে প্রথম প্রস্তুতিতে বিপর্যয়! সুইং আর লেট মুভেমেন্টের জারিজুরি শুরু হতেই সুপারফ্লপ রোহিত-ধাওয়ান-কোহলি৷ বিরাটরা অল-আউট ১৭৯ রানে! ধ্বংসের এই ছবি দেখে অবশ্য মাথা ব্যথা শুরু করতে নারাজ ভারত অধিনায়ক কোহলি৷

আরও পড়ুন- World Cup 2019: ইংল্যান্ড ‘বধ’ করে বিশ্বকাপ ওয়ার্ম আপ অস্ট্রেলিয়ার

বিরাটের সাফ কথা পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চ্যালেঞ্জ নিতেই প্রথমে ব্যাটিংয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন৷ ‘ব্যাটসম্যানরা চ্যালেঞ্জটা নিতে চেয়েছিল৷ ব্যার্থ হয়েছে৷ টপ অর্ডার, মিডল অর্ডারের পরীক্ষা প্রয়োজন ছিল৷ ওয়ার্ম আপ জেতাটা আসল লক্ষ্য নয়, চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতিতে নিজেদের রিহার্সাল দিয়ে নেওয়াটার মাইন সেট থাকা উচিত৷’ ম্যাচ শেষে এমনটাই জানিয়েছেন বিরাট৷ পরে সাংবাদিক সম্মেলনে জাদেজাও ঘুরিয়ে কোহলির কথার সারমর্মই শুনিয়ে যান৷

অতীত অবশ্য বলছে, প্রস্তুতিতে হোঁচট খেলে ভালো ফল করে ভারত৷ ১৯৮৩ বিশ্বকাপে প্রস্তুতি ম্যাচ হেরেছিল কপিল দেবের ভারতীয় দল৷ সম্প্রতি ৮৩ বিশ্বকাপ নিয়ে রজার বিনির এক সাক্ষাৎকারেই সেই উল্লেখ রয়েছে৷ সেখান থেকে টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিডকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাস ফিরে পায় ভারত৷ এরপর ধাপে ধাপে ফাইনাল৷ আর ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েই সেই বিশ্বকাপে কপিল দেবের ভারত শেষ হাসি হেসেছিল৷

আরও পড়ুন- World Cup 2019: ওয়ার্নারের জন্য ‘চোর’ ধ্বনি গ্যালারিতে , ব্যাটে জবাব দিলেন স্মিথ

২০০৩ বিশ্বকাপে সৌরভ জমানাতেও এমন উদাহরণ রয়েছে৷ সেখানে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচের একটি বৃষ্টির কারণে ভেস্তে যায়, অন্যটিতে নাটাল (কোয়া-জুলু নাটাল) একাদশের বিরুদ্ধে হেরে বসেছিল ভারতীয় দল৷ সেই বিশ্বকাপে শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ফাইনাল খেলেছিল মেন ইন ব্লু৷ ফাইনালে অবশ্য অস্ট্রেলিয়ার শক্তিশালী ব্যাটিং-বোলিংয়ের সামনে ধাক্কা খায় ভারত৷

২০১৫ বিশ্বকাপেও প্রস্তুতিতে একটি ম্যাচে হার ও এক ম্যাচে জয় ভারতের৷ টুর্নামেন্টে সেমিফাইনাল পর্যন্ত গিয়েছেল দল৷ অতীত পরিসংখ্যান তাই বলছে, প্রস্তুতিতে ধাক্কা খেলে বিশ্বকাপে ভালোই ঘুরে দাঁড়ায় ভারত৷