কলকাতা ২৪x৭: উনিশের বিশ্বকাপ কি তবে ব্যাটসম্যানদের স্বর্গরাজ্য হতে চলেছে৷ ইয়ন মর্গ্যানদের দেশে শেষ কয়েক ম্যাচ কিন্তু সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে৷ ৩০ মে থেকে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের মাটিতে শুরু হচ্ছে পঞ্চাশ ওভারের ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসর৷ তার আগে ঘরের মাঠে পাঁচ ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজ খেলছে ইংল্যান্ড৷ সেই ওয়ান ডে সিরিজেই বোলাদের উপর দারুণভাবে ছড়ি ঘোরাতে দেখা যাচ্ছে ব্যাটসম্যানদের৷ সেই ছবি দেখেই আগাম অনুমান করা যায়, বিশ্বকাপে নিরাপদ নয় ৩০০ রান!

আরও পড়ুন- World Cup 2019: ব্যাটসম্যানদের ত্রাস হতে পারেন এই পাঁচ বোলার

একনজরে পরিসংখ্যানে চোখ রাখুন-

ইংল্যান্ডের মাটিতে ইংল্যান্ড বনাম পাকিস্তান সিরিজে শেষ তিন ওয়ান ডে ম্যাচ-
১) প্রথম ম্যাচ বৃষ্টির কারণে ভেস্তে যায়৷ দ্বিতীয় ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৭৩ রান তুলেছিল ইংল্যান্ড৷ ব্রিটিশদের হয়ে ৫৫ বলে ১১০ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন জোস বাটলার৷ পাহাড় প্রমাণ টার্গেট তাড়া করতে নেমে মাত্র ১২ রানের জন্য ম্যাচ খোয়ায় পাকিস্তান৷ নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ৩৬১ রানে ইনিংস থামে পাকিস্তানের৷ পাক দলের হয়ে ওপেনার ফাকর জামান ১৩৮ রানের দুরন্ত ইনিংস খেললেও জয়ের গণ্ডি পার করতে ব্যর্থ হয় সরফরাজ অ্যান্ড কোম্পানি৷

আরও পড়ুন- ধোনির অভিনব শাস্তির ভয়েই সবাই অনুশীলনে আসত যথা সময়ে

২) দ্বিতীয় ওয়ান ডে’র পর তৃতীয় ওয়ান ডে’তে চোখ রাখা যাক৷ সিরিজের তৃতীয় ম্যাচেও ব্যাটিং বিস্ফোরণ৷ ৩৫৮ রানের পাহাড় খাড়া করেও ম্যাচ জিততে পারেনি পাকিস্তান৷ প্রথমে ব্যাট করে ইমাম উল হকের ১৫১ রানের সুবাদে ৯ উইকেট হারিয়ে ৩৫৮ রান তোলে পাক দল৷ জবাবে ৫ ওভার বাকি থাকতেই ৪ উইকেট হারিয়ে ৩৫৯ রান তুলে নেয় ইংল্যান্ড৷ ব্রিটিশদের হয়ে ওপেনার জনি বেয়ারস্টো ১২৮ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন৷ ৭৬ রান হাঁকিয়ে তাকে যোগ্য সংগত দেন আরেক ওপেনার জেসন রয়৷ পাকিস্তানকে হারিয়ে ৬ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় ইংল্যান্ড৷

আরও পড়ুন- বিশ্বকাপের শুরু থেকেই পাওয়া যাবে রাবাদাদের, আত্মবিশ্বাসী কোচ গিবসন

উল্লেখ্য ঘরের মাঠে  এটি ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়, এবং সব মিলিয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সফল রান চেস৷ এর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে ৩৬০ রান তাড়া করতে নেমে ৮ বল বাকি থাকতে ৩৬৪ রান হাঁকিয়ে ৬ উইকেটে ম্যাচ জিতেছিল ইংল্যান্ড৷