নয়াদিল্লি: বিশ্ব ব্যাংক ভারতের জন্য আপৎকালীন এক‌বিলিয়ন ডলার অনুমোদন করলো করোনা মোকাবিলা করার জন্য। ইতিমধ্যে এ দেশে কোরোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৭৬ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং গোটা দেশে এখন ২৫০০ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত। বিশ্ব ব্যাংক প্রথম এই সাহায্য প্রকল্পের জন্য ১.৯ বিলিয়ন ডলার‌ দিচ্ছে যা ২৫ টি দেশকে সহায়তা করবে এবং ব্যাংক ৪০ টি দেশে ফাস্ট ট্র্যাক প্রসেসে নয়া কার্যক্রম চালু করার দিকে যাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

আপৎকালীন আর্থিক সাহায্যের বড় অংশই চলে যাচ্ছে ভারতে। এই এক বিলিয়ন ডলার আর্থিক সাহায্য কাজে লাগানো হবে, উন্নত স্ক্রীনিং, কন্টাক্ট ট্রেসিং, পরীক্ষাগারে রোগ নির্ণয়, ব্যক্তিগত সুরক্ষার ইকুইপমেন্ট এবং নতুন আইসোলেশন ওয়ার্ড গড়ার জন্য বলেন বিশ্বব্যাংকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ায় বিশ্ব ব্যাংক পাকিস্তানের জন্য অনুমোদন করেছে ২০০ মিলিয়ন ডলার, আফগানিস্তানের জন্য ১০০ মিলিয়ন ডলার, মালদ্বীপের জন্য ৭.৩ মিলিয়ন ডলার এবং শ্রীলংকার জন্য ১২৮.৬ মিলিয়ন ডলার। বিশ্ব ব্যাংক জানিয়েছে, তারা কাজ করছেন যাতে আগামী ১৫ মাসে ১৬০ বিলিয়ন ডলার অনুদানের ব্যবস্থা করা যায়, মা দিয়ে এই মহামারী আটকাতে সহায়তা করবে। এটা মূলত নজর দেওয়া হবে অবিলম্বে স্বাস্থ্যখাতে এবং তারপর অর্থনৈতিক পুনরুত্থানের জন্য।

ব্যাংক জানাচ্ছে আফগানিস্থানের জন্য যে ১০০ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করা হচ্ছে তা কাজে লাগানো হবে নজরদারি, ল্যাবরেটরি, অত্যাবশ্যকীয় হেলথকেয়ার এবং ইনটেনসিভ কেয়ার ইত্যাদির জন্য। অন্যদিকে পাকিস্তানের জন্য ২০০ মিলিয়ন ডলার দেওয়া হচ্ছে আপৎকালীন স্বাস্থ্য ক্ষেত্রের জন্য যার মধ্যে ধরা থাকছে সামাজিকভাবে সুরক্ষা এবং ‌ গরিব মানুষদের এই মহামারী বিষয়ে সচেতন করার জন্য।

যেহেতু সরবরাহ ব্যবস্থা গোটা বিশ্ব জুড়ে ধাক্কা খেয়েছে তাই বিশ্ব ব্যাংক এগিয়ে এসেছে বিভিন্ন দেশকে সহায়তা করতে। ‌ নজর দেওয়া হচ্ছে ওষুধ ও অন্যান্য স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিভিন্ন দেশের সরকারের মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে। পাশাপাশি অন্যান্যদেরও বিশ্বব্যাংক উৎসাহিত করছে যাতে তারা এগিয়ে আসে করোনা মোকাবিলায় উন্নয়নশীল দেশগুলোকে সহায়তা করতে।