স্টাফ রিপোর্টার, বারুইপুর: বাঘের সঠিক সংখ্যা সুন্দরবনে কত তা জানতে আরও একবার বাঘ গণনার কাজ শুরু করল বনদফতর। ভারতবর্ষের সমস্ত বাঘেদের বাসস্থানে শুরু হয়েছে এই গণনার কাজ। তারই অঙ্গ হিসাবে দক্ষিণ ২৪ পরগণার সুন্দরবনেও শুরু হয়েছে এই ব্যাঘ্র সুমারির কাজ। প্রাথমিকভাবে সুন্দরবনের জঙ্গলে ক্যামেরা বসিয়ে বাঘ গণনার কাজ শুরু করেছে বনদফতর। বর্তমানে সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প ও ২৪ পরগণা বিভাগীয় বন দফতরের অধীনে থাকা রেঞ্জগুলিতে শুরু হয়েছে ক্যামেরা বসানোর কাজ। এই ক্যামেরায় ওঠা বাঘের ছবি পর্যবেক্ষণ করে আগামী মার্চে রিপোর্ট সরকারের হাতে তুলে দেবে বন দফতর।

আগে বাঘের পায়ের ছাপ দেখে বাঘ গণনার কাজ চলত সুন্দরবনে। কিন্তু পুরনো এই পদ্ধতিতে বাঘের সঠিক সংখ্যা পেতে সমস্যা ছিল বিস্তর৷ প্রথম সমস্যা, বনকর্মীদের নিরাপত্তার অভাব৷ এছাড়া এটা বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি নয় বলে দাবি পশু বিশেষজ্ঞদের৷ পুরনো পদ্ধতি ব্যবহার করে ২০০৪ সালে পাওয়া ব্যঘ্র সুমারির রিপোর্টে জানা গিয়েছিল, সুন্দরবনে প্রায় ২৭৪টি বাঘ রয়েছে। কিন্তু এই গণনার মধ্যে যথেষ্ট ভুল ছিল বলে দাবি করেছিলেন বহু পশু বিশেষজ্ঞ ও বনাধিকারিকরা। বাঘেদের সঠিক সংখ্যা জানার জন্য তাই কয়েকবছর আগে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির ব্যবহার শুরু হয় সুন্দরবনে। তার মধ্যে সরাসরি চোখে দেখে, বাঘের মল সংগ্রহ করে ও ক্যামেরার সাহায্যে বাঘের ছবি তুলে গণনার কাজ শুরু হয়। তবে এইগুলির মধ্যে ক্যামেরার মাধ্যমে বাঘ গণনার পদ্ধতিকেই কার্যত শীলমোহর দেওয়া হয়।

সেই কারণে গত কয়েক বছর ধরে জঙ্গলে ক্যামেরা লাগিয়ে বাঘেদের ছবি তুলে তা পর্যবেক্ষণ করে বাঘের আনুমানিক সঠিক সংখ্যা নির্ধারণের চেষ্টা করেছে বন দফতর। আধুনিক পদ্ধতি ব্যবহার করে শেষ পাওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী সুন্দরবনে বাঘেদের সংখ্যা একশোর আশেপাশে। তবে এবারে বাঘেদের সংখ্যা আরও অনেকখানি বেড়েছে বলে দাবি করছে বনদফতর। কারন গত বেশ কয়েকমাসে বহু বাঘ দেখা গিয়েছে সুন্দরবনে। বনকর্মীদের পাশাপাশি সুন্দরবনে বেড়াতে আসা বহু পর্যটকই দেখা পেয়েছেন দক্ষিণরায়ের।

তবে ফাইনাল পাওয়া রিপোর্টের আগে এই বিষয়ে বাড়তি কিছু বলতে নারাজ বনকর্তারা। এই বছর বাঘ গণনার জন্য সুন্দরবনের দুটি বিভাগে মোট আটটি দল কাজ করছে। এক একটি দলে রয়েছে ১৫ জন করে বনকর্মী। সব মিলিয়ে প্রায় ১২০ জনের মতো বনকর্মী এই বাঘ গণনার কাজে হাত লাগিয়েছেন। মোট ৮৪০ টি স্বয়ংক্রিয় ক্যামেরা বসানো হচ্ছে সুন্দরবনের জঙ্গলের বিভিন্ন প্রান্তে। টানা ৩৬ দিন ধরে মোট দু’দফায় চলবে বাঘের ছবি তোলার কাজ। আর তাই বর্তমানে বাঘ গণনার জন্য চরম ব্যস্ততা বনকর্মীদের মধ্যে।