ইসলামাবাদ : শান্তি বৈঠকের জন্য পাকিস্তান মোটেই ভারতের পিছনে ঘুরঘুর করছেনা। নয়া দিল্লির সামিটে ভারতের কাছে লজ্জাজনকভাবে তিরস্কৃত হয়ে পিঠ বাঁচাতে এমনই সাফাই দিল পাকিস্তান।

নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত সাঙ্ঘাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন সামিট (SCO)-এ পাক বিদেশ মন্ত্রী শাহ মেহেমুদ কুরেশি বলেন, এই দুদিনের সামিটে দুই দেশের মধ্যে কোনও বৈঠকই স্থির হয় নি।

গত ১৩ থেকে ১৪ জুন কাইরগিস্তানের বিশেকেকে দুদিন ব্যাপী সামিটের আয়োজন করা হয়েছে। এই বৈঠকেই দুই দেশ অর্থাৎ ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের জন্য ভারতকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন পাক বিদেশ মন্ত্রী শাহ মেহেমুদ কুরেশি। কিন্তু ইসলামাবাদের এই ডাক অচিরেই নাকোচ করে দেয় ভারত। এরপরেই লজ্জা ঢাকতে কুরেশির সাফাই, এই দুদিনের বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে মুখোমুখি বসার কোনও কথাই হয় নি।

তিনি আরও বলেন, “ভারত এখনও লোকসভা নির্বাচনের রেশ থেকে বেরিয়ে আসতে পারে নি। ভারত এই সামিটে পাকিস্তানের বিমানে তাঁদের প্রধানমন্ত্রীর উড়ানের জন্য অনুমতি চেয়েছিল মাত্র, আমারাও অনুমতি দিই।” কিন্তু যাই হোক, হঠাৎই অনুমোদন সত্ত্বেও, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানের বিমানের উপর ভরসা না করে অন্য বিমানে যাত্রা করেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানের বালাকোটে জইশ-ই-মহম্মদ (জেইএম) জঙ্গি শিবিরে ভারতীয় বিমান বাহিনী বিমান হামলা চালানোর পর পাকিস্তান সম্পূর্ণরূপে বিমান চালনা বন্ধ করে দিয়েছে। তবে, পরে ২ টি দুটি রুট খুলে দেয়।