নয়াদিল্লি: ২০১৯ সালে কোনওভাবেই ক্ষমতায় আসবে না বিজেপি৷ অন্তত শিব সেনার পক্ষ থেকে এই ব্যাপারে কোনও সমর্থন মিলবে না৷ দলীয় মুখপত্র সামনায় এক সম্পাদকীয়তে পরিস্কার জানিয়ে দিলেন শিব সেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে৷

মুখপাত্র সামনায় বলা হয়েছে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচন নিয়ে বিজেপিকে স্পষ্ট বার্তা পাঠাল শিবসেনা। একইসঙ্গে তাঁদের বক্তব্য, ২০১৪ সালের নির্বাচন রাজনৈতিক দুর্ঘটনা ছিল। ২০১৯ সালে তার পুনরাবৃত্তি হবে না।

সম্পাদকীয়তে এটাও বলা হয়েছে, দিল্লির ক্ষমতা কার হাতে যাবে, তা নির্ধারণ করার ক্ষমতা শিবসেনার রয়েছে৷ কিন্তু ক্ষমতার জন্য তাঁরা অন্ধ নয়৷ ২০১৪ সালে বিজেপির বিপুল জয় রাজনৈতিক দুর্ঘটনা বলে দাবি করে তাঁরা বলেছে ২০১৯ সালে এই পরিস্থিতি হবে না। ২০১৯ সালে দিল্লি কার দখলে আসবে তা তাঁরা ঠিক করবে।

তারা আরও লিখেছে, মহারাষ্ট্রে শিবসেনা নিজেদের ক্ষমতায় একাই সরকার গড়বে। তাদের দাবি দেশে জরুরি অবস্থার আগের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে৷ কাশ্মীরে সেনা কর্মীরা মারা যাচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, সম্পর্ক ফর সমর্থন কর্মসূচী নিয়ে উদ্ধব থ্যাকারের সঙ্গে দেখা করেছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। কথা হয়েছিল দু’‌পক্ষের মধ্যে। কিন্তু বরফ যে গলেনি তা ফের স্পষ্ট করে দেওয়া হল মুখপত্রের মাধ্যমে।

এমনকী রীতিমত বিজেপিকে কাঠগড়ায়ও তোলা হয়েছে। আগামী লোকসভা ভোটের আগে রুষ্ট শরিকদের অভিমান ভাঙাতে শিবসেনা প্রধানের সঙ্গে দেখা করেন বিজেপি সভাপতি৷ তখনই সেনা বুঝিয়ে দেয়, তারা একলা চলার কথা ভাবছে।

এবার সামনায় সম্পাদকীয়তে সেই অবস্থানেই সিলমোহর দিল তাঁরা৷ তাঁরা লিখেছে শুধু দিল্লি নয়, ধুলোঝড় বইছে গোটা দেশেই। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বেশিরভাগ সময় বিদেশে থাকেন তাই এই ধুলোঝড়ে তিনি তত সমস্যায় পড়েন না৷

২০১৪-র মহারাষ্ট্র বিধানসভা ভোটে সেনা-বিজেপি আলাদা করে লড়লেও ফল বার হওয়ার পর জোট বেঁধে সরকার গড়ে তারা। ২৮৮ টির মধ্যে বিজেপির আসন সংখ্যা ১২২, সেনার ৬০টি।