দেবযানী সরকার, কলকাতা: দুয়ারে লোকসভা ভোট৷ তার আগে কংগ্রেসের নজরে কামদুনি-পার্কস্ট্রিট ইস্যু৷ ১৯শের ভোটের আগে কামদুনি-পার্ক স্ট্রিটের ঘটনা আরও একবার রাজ্যবাসীকে স্মরণ করাতে চাইছে বিধান ভবনের নেতারা৷ তাই রাজ্যজুড়ে নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে দলের মহিলা শাখাকে আন্দোলনে নামানো হচ্ছে৷ ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে কামদুনি থেকে পার্ক স্ট্রিট পর্যন্ত মিছিল করবে প্রদেশ মহিলা কংগ্রেস৷

আরও পড়ুন: নাগরিকত্ব সংশোধনী: স্পিকারের পর মন্ত্রীর হুঁশিয়ারিতে আরও বিব্রত বিজেপি

শহুরে পার্ক স্ট্রিট থেকে গ্রাম্য কামদুনি৷ দু-দুটি ধর্ষণের ঘটনা তোলপাড় করে দিয়েছিল গোটা রাজ্য৷ চলেছিল শাসক বিরোধী জোর তরজা৷ সেই দু’টি অন্দোলনকে পুঁজি করেই এরাজ্যে নিজেদের পায়ের তলার মাটি পোক্ত করতে চাইছে হাত শিবির৷ জানা গিয়েছে, কলকাতা তথা দক্ষিণবঙ্গের দলের মহিলা শাখার সদস্যরা এই কর্মসূচীতে যোগ দেবেন৷

মহিলা প্রদেশ কংগ্রেসের সভানেত্রী সুব্রতা দত্তের কথায়, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে রাজ্যে নারী নির্যাতনের ঘটনা বেড়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তা বন্ধ করতে ব্যর্থ। তাই রাজ্যের এই সার্বিক ব্যর্থতাকে আমরা মানুষের কাছে তুলে ধরছি।” তিনি জানিয়েছেন, আপাতত ৪ ফেব্রুয়ারি এই কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে৷ তবে প্রয়োজনে এটা পিছোতে পারে৷ মিছিলে থাকবে একাধিক ট্যাবলো৷ সেখানে রাজ্যের নারী নির্যাতনের পরিসংখ্যান তুলে তুলে ধরা হবে৷

 

গতবছর ৭ অগষ্ট সর্ব ভারতীয় মহিলা কংগ্রেস সংগঠনের দলীয় প্রতীক সহ পতাকা পেয়েছে৷ তখনই কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী দলের মহিলা শাখাতে সক্রিয় হওয়ার নির্দেশ দেন৷ বিশেষ করে বিজেপি শাসিত রাজ্যেগুলিতে নারী নির্যাতন নিয়ে আন্দোলনে ঝড় তুলতে বলেন তিনি৷ তালিকায় ছিল তৃণমূল শাসিত পশ্চিবঙ্গের নামও৷

আরও পড়ুন: ২০২৫ সালের মধ্যে তৈরি করতে রামমন্দির: আরএসএস

গত সেপ্টেম্বরেই পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসের তরফে কামদুনি থেকে পার্ক স্ট্রিট পর্যন্ত মিছিলের পরিকল্পনা থাকলেও তা বাস্তবায়িত হয়নি৷ অবশেষে ভোটের আবহে সেই দায়িত্ব কাঁধে নিলেন দলের মহিলা ব্রিগেড৷ প্রদেশ কংগ্রেসের অসন্তোষ সত্ত্বেও শনিবারের সভার সফলতা কামনা করে রাহুলের শুভেচ্ছা পৌঁছে গিয়েছে তৃণমূল নেত্রীর কাছে৷ এই প্রেক্ষাপটে মহিলা কংগ্রেসের আন্দোলন কতটা প্রভাব ফেলবে রাজ্যবাসীর মনে তা নিয়ে সন্দিহান রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা৷