নয়াদিল্লি:  শুধু পুরুষেরাই নয়, এবার সম্মুখ সমরে শত্রুদের সঙ্গে লড়তে যাবেন মহিলারাও।  এমনটাই জানিয়েছেন ভারতীয় সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত।  ভারতীয় সেনায় মহিলাদের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা থাকলেও, সেই অর্থে শত্রুপক্ষের সঙ্গে মুখোমুখি যুদ্ধের জন্যে সেনার মহিলা জওয়ানদের পাঠানো হত না।  এবার পুরুষদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়বে সেনার ‘দুর্গা’-‘পার্বতীরা’ও

সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত জানিয়েছে, মেয়েদের যুদ্ধে পাঠানোর বিষয়টি দ্রুত সবুজ সংকেত পেতে চলেছে।  প্রাথমিকভাবে সেনাবাহিনীর পুলিশ বিভাগে নেওয়া হবে মহিলাদের।  তারপর তাঁদের আনা হবে সেনা জওয়ান পদে।  আর সেখান থেকে সরাসরি যুদ্ধক্ষেত্রে পাঠানো হবে মহিলাদের।  সেনাবাহিনীর ইতিহাসে এই সিদ্ধান্ত একেবারেই ঐতিহাসিক বলে মনে করছেন সামরিক পর্যবেক্ষকরা।

হাতে গোনা কয়েকটি দেশেই মহিলাদের যুদ্ধক্ষেত্রে পাঠানো হয়।  সেই দেশগুলি হল, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, আমেরিকা, ব্রিটেন, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, নরওয়ে, সুইডেন ও ইজরায়েল, রাশিয়া এবং চিন।   এবার সেই তালিকাতে চলে আসবে ভারতের নামও।   সেনাপ্রধান জানিয়েছেন, কেন্দ্রের সবুজ সঙ্কেত পেলেই মহিলাদের যুদ্ধক্ষেত্রে পাঠানো হবে।  অন্যদিকে, ইতিমধ্যে ভারতীয় বায়ুসেনা ৩ মহিলা অফিসারকে ফাইটার পাইলট পদে নিয়োগ করেছে। বিষয়টি নিয়ে ভাবনাচিন্তা করছে নৌসেনাও।  ফলে, আগামিদিনে যে যুদ্ধক্ষেত্রে পুরুষদের সঙ্গেই সমানে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করবে দেশের তিন সেনাবাহিনীতে তা আর বলার প্রয়োজন নেই।