নয়া দিল্লি: দেশে ক্রমেই বেড়ে চলেছে নারী নির্যাতনের পরিমাণ। হায়দরাবাদ থেকে শুরু করে মালদহ, উন্নাও থেকে শুরু করে কলকাতা সর্বত্র ছবিটা প্রায় একই। দিনে দিনে লাফিয়ে বাড়ছে সংখ্যা। এবার অবশেষে সরাসরি না হলেও ঘুরিয়ে যেন সেই কথাই স্বীকার করে নিলেন খোদ নরেন্দ্র মোদী।

রবিবার মহারাষ্ট্রের পুণেতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পুলিশকে বলেন নারী সুরক্ষার ব্যাপারে অগ্রাধিকার দিতে হবে। পাশাপাশি নারী ও শিশুদের কাছে যে পুলিশের আস্থা ফেরাতে হবে সে কথাও মনে করিয়ে দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন – নাবালিকাকে ধর্ষণ, অন্তঃসত্ত্বা কিশোরী

উল্লেখ্য, দেশে মহিলাদের ওপর হওয়া অত্যাচারের ঘটনা উত্তোরত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। বিজেপি শাসিত রাজ্য উত্তর প্রদেশকে ধর্ষণের রাজধানী বলে অভিযোগ করেছেন রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। শুধু কংগ্রেস না মহিলাদের ওপর অত্যাচার নিয়ে বিরোধী তো বটেই এমনকি সাধারণ মানুষও সোশ্যাল মিডিয়ায় মোদী সরকারকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছে।

এমতাবস্থায় সামনে দাঁড়ালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পুলিশকে নাররী নিরাপত্তা সংক্রান্ত নির্দেশ দেন তিনি। তবে প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশকে কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ বলেই মানছেন রাজনৈতিক মহল। অন্যদিকে বিরোধীদের দাবি, দেশে নারীরা যে এখন মোটেই সুরক্ষিত নয়, সে কথাই এই নির্দেশের মাধ্যমে প্রমাণ করলেন মোদী।