নয়াদিল্লি: কিছুদিন আগেই হিজাব পরে পর্নোগ্রাফিতে অভিনয় করে বিতর্কের ঝড় তুলেছিলেন লেবানিজ পর্নস্টার মিয়া খলিফা। পরবর্তীকালে তিনি বারবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, নিজের প্রতিবাদের ভাষা হিসাবেই হিজাব পরে পর্নোগ্রাফিতে অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এমনকী এই ঘটনার পর তাকে খুন করে দেওয়ারও হুমকি দেওয়া হয়। মিয়া খলিফার মতো যে সব মুসলিম মহিলারা হিজাবের বিরোধী তারাও এবার নিজের মনের কথা খুলে বলার সুযোগ পেতে চলেছেন। এমন একটি নতুন অ্যাপ আসছে বাজারে যার মাধ্যমে এবার হিজাব বিরোধী মনের কথা খুলে বলতে পারবেন মুসলিম মহিলারা।

সমস্ত হিজাব বিরোধী প্রতিক্রিয়া তুলে দেওয়া হবে রাষ্ট্রসংঘের কাছে। ইতিমধ্যেই হিজাব নিয়ে বিশ্বের প্রায় সমস্ত দেশ দুইভাগে বিভক্ত। কয়েকটি দেশ ইসলাম ধর্মের প্রতীক হিজাবকে ইতিমধ্যেই নিষিদ্ধ করার পক্ষপাতী। ফ্রান্স ও তুরস্কে সরকারি স্কুল কলেজ ও দফতরে হিজাবকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। একই আইন রয়েছে মিশরেও। তবে ইরানে হিজাব পরে না বেরোলে আইনত তা অপরাধ হিসাবে মনে করা হয়। এক প্রতিবাদী হিজাবের বিরুদ্ধে ওই অ্যাপে লিখেছে, “যখন কেউ আমাকে বলে যে আমার হিজাব সেক্সি তখন রাগ হয়। আমি ওটা ভগবানের জন্য পরি। কোনও ছেলের জন্য নয়।” আগামীদিনে হিজাব কোন পথে চলবে তা জানা যাবে আর কয়েকদিনের মধ্যেই।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও