দেরাদুন: আবার চমকে দিলেন বিজেপির এক নেতা। জীবন বিজ্ঞান উল্টে পাল্টে দিতে দেশের নেতাদের জুড়ি মেলা ভার। গোমূত্রে ক্যান্সার সেরে যায়, এমন দাবি করেছিলেন এক বিজেপি সাংসদ। এবার আর এক বিজেপি নেতা দাবি করলেন, গঙ্গার জল খেলে নাকি সিজার করতে হবে না গর্ভবতী মহিলাদের।

বিজেপি সাংসদ তথা উত্তরাখণ্ডের বিজেপি চিফ পরামর্শ দিয়েছেন, যদি মহিলারা ডেলিভারির সময় সিজার এড়িয়ে যেতে চান, তাহলে গরুড় গঙ্গার জল পান করতে হবে। কুমায়ুনের বাগেশ্বেরর উপর দিয়ে বয়ে চলেছে এই গরুড় গঙ্গা।

বৃহস্পতিবার লোকসভায় বক্তব্য রাখছিলেন তিনি। সেখানেই এই গরুড় গঙ্গার জলের গুণাগুনের কথা বলেন। তিনি বলেন, খুব কম লোকেই এই জলের কথা জানে। তিনি আরও জানান যে ওই নদীর তলা থেকে পাথর তুলে যদি সাপে কামড়ানো অঙ্গে ঘষা যায়, তাহলে নাকি বিষ চলে গিয়ে প্রাণে বেঁচে যেতে পারেন আক্রান্ত ব্যক্তি।

ওই নদীর পাথরের এক অলৌকিক শক্তির কথাও উল্লেখ করেন অজয় ভাট। বলেন, কালড়িঘাট নামে একটি জায়গায় এক ব্যক্তি নাকি বলেছিলেন যে তিনি বাড়িতে ঢুকতে পারছিলেন না সাপের ভয়ে। তখন এক সাধু তাঁকে ওই নদী থেকে তোলা একটি পাথর দেন। পাথর নিয়ে বাড়িতে যেতেই নাকি উধাও হয়ে যায় সাপ।

সবশেষে অজয় ভাট বলেন, গরুড় গঙ্গার জল এক কাপ খেলেই নাকি সিজারের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। পথ্য হিসেবে তিনি বলেন, গরুড় গঙ্গা থেকে পাথর নিয়ে সেটা ঘষে জলের সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। তাহলেই গর্ভবতী মহিলার আর সিজার করার দরকার পড়বে না।

স্বাভাবিকভাবেই অজয় ভাটের এই মন্তব্য ঘিরে তেরি হয়েছে বিতর্ক। বহু অ্যালোপাথি চিকিৎসক এই মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন।