চুঁচুড়া: বর্তমানে টিক টকের জনপ্রিয়তা ফেসবুককেও ছাপিয়ে যাচ্ছে। আর সেই টিক টক ভিডিও-র জগতে এগিয়ে গিয়েই উধাও হয়ে গেল চুঁচুড়ার বাসিন্দা এক মহিলা।

নিখোঁজ হয়ে গিয়েছে প্রতিমা মণ্ডল নামে ওই মহিলা। হুগলির লটারি বিক্রেতা প্রসেনজিৎ মণ্ডল ওরফে বাবুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল প্রতিমার। তাঁদের এক কন্যাসন্তানও রয়েছে। ৩১ ডিসেম্বর থেকে প্রতিমার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছে না।

প্রসেনজিৎ জানিয়েছেন তিনি স্ত্রী’কে মোবাইল কিনে দেন টিকটক করার জন্য। স্ত্রী প্রতিমা ‘জ্যাসমিন’ নামের অ্যাকাউন্ট খুলে টিকটক করতে শুরু করেন। আসতে আসতে বাড়তে থাকে জনপ্রিয়তা। এতে উৎসাহ যোগান স্বামীও। স্ত্রী রোজগারও করছিলেন টিকটক থেকে।

স্বামীকে জানিয়েই বিভিন্ন রাজ্যে যেতেন ভিডিও শ্যুট করতে। স্বামী কখনও বাধাও দেননি। টিকটক থেকে রোজগার হচ্ছে দেখে আরও একটি মোবাইল কিনে দেন বাবু। এমনকি বাবু নিজেও কখনও সখনও প্রতিমার টিকটক ভিডিও-তে অংশগ্রহণ করতেন।

৩১ তারিখ হাওড়া থেকে ট্রেনে চেপে দিল্লি গিয়েছেন প্রতিমা। এক যুবক তাঁকে র‍্যাম্পে হাঁটার অফার দেয়। রাজধানীতে পৌঁছনোর পর থেকে আর সেভাবে যোগাযোগ করতে পারেননি বাবু। ২-৩ দিন পর মোবাইল ফোন অন করে বাবুকে ফোন করে তাঁর স্ত্রী প্রতিমা জানান, নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণে যোগাযোগ করে উঠতে পারেননি।

কথা ছিল ৩-৪ তারিখ নাগাদ প্রতিমা ফিরে আসবেন। এখনও ফেরেননি। কখনও ফোন অন আবার কখনও অফ। এমনকি ছেলেটিও তাঁর টিকটক অ্যাকউন্ট ডিলিট করে দিয়েছে। ফোনও স্যুইচড অফ। বাবুর অভিযোগ, স্ত্রীকে মডেলিং করার টোপ দেখিয়ে দিল্লি নিয়ে গিয়েছেন ভিকি।

পুলিশে অভিযোগ জানালে, থানা থেকে বাবুকে বলা হয়, স্ত্রীকে খুঁজে এনে দেওয়া তাঁদের কাজ নয়। খুঁজতে হবে তাঁকেই।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা