ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: বর্তমান সময়ে যে কোনও মানুষের কাছে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বিশ্বাস। কারণ বিশ্বাস করে প্রায়ই ঠকতে হচ্ছে অনেককে। আর এই বিষয়টি আবারও চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল রাজধানী দিল্লি।

এমনিতেই একাধিক অপরাধের কারণে মাঝে মাঝেই খবরের শিরোনামে আসে রাজধানী দিল্লি। কিন্তু এবারে দিল্লির উত্তর-পশ্চিমের জাহাঙ্গিরপুরি ঘটল চাঞ্চল্যকর ঘটনা। একটি ফ্ল্যাট থেকে এক মহিলা এবং তার নাবালক শিশুর নিথর দেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে মৃত ওই মহিলার নাম পুজা। তার নাবালক সন্তানের নাম হর্ষ। ঘটনাটি ঘটেছে জাহাঙ্গিরপুরির কে ব্লকের একটি ফ্ল্যাটে। পুজার স্বামী দুবছর আগেই মারা গিয়েছিল। তিনি একটি বেসরকারি সংস্থাতে কাজ করতেন।

পুলিশি আধিকারিকের তরফে জানা গিয়েছে দুর্গন্ধ পেয়ে পড়শিরাই পুলিশে খবর দিয়েছিলেন। তারপরে পুলিশ এসে দরজা ভেঙে ওই দুই মৃতদেহ উদ্ধার করেছিলেন। এক পড়শির তরফ থেকে জানা গিয়েছিল তাদের ঘরের দরজা বিগত দু-তিনদিন ধরে বন্ধ ছিল।

পুলিশ জানিয়েছে সারা ঘর থেকে ধ্বস্তাধ্বস্তির কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি। যার থেকে তারা মনে করছেন চেনা কেউ ওই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। এই ঘটনায় মৃত মহিলার মা রীতিমত চমকে গিয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে তিনিও ওই একই এলাকাতে থাকেন।

প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে খুনি প্রথমে ছুরি দিয়ে ওই মহিলাকে খুন করেছিলেন। তারপরে প্রমাণ লোপাট করার জন্য তার সন্তানকে খুন করেছিল। ইতিমধ্যে পুলিশ ওই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। মৃতদেহগুলি ময়না তদন্তের জন্য বাবু জগজীবন রাম হাসপাতালে অটোপ্সির জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে।