সীতাপুর: হায়দরাবাদের চিকিৎসক তরুণীকে গণধর্ষণ করে জ্বালিয়ে দেওয়ার ঘটনা সামনে আসার পরে কেঁপে গিয়েছে আসমুদ্র হিমাচল। সাধারণ মানুষ থেকে বিদ্বজ্জনেরা সকলে এক বাক্যে চাইছেন দোষীদের কঠিন শাস্তি।

এছাড়াও বিভিন্ন জায়গাতে শুরু হয়েছে ধর্না। মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়ে সরাসরি প্রশ্ন তুলে সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয়েছে প্রচার। কেন বারবার মেয়েদেরকেই শিকার হতে হবে কেনই বা তারা রাস্তায় নিরাপদে বেরোতে পারবে না টা নিয়ে গলা তুলছে অনেকে।

তারপরেও থামানো যাচ্ছে না এই ধরনের ঘটনা। বারবার কিছু মানুষের লালসার শিকার হতে হচ্ছে সাধারণ মেয়েদের। বাদ যাচ্ছে না নাবালিকারাও। এবারে উত্তর প্রদেশের সিতাপুর জেলাতে ১৫ বছর বয়সী এক নাবালিকাকে গণধর্ষণ করার ঘটনা সামনে এসেছে।

জানা গিয়েছে ঘটনাটি ঘটেছে ৩ ডিসেম্বর। ওই নির্যাতিতা কিশোরীকে আখ ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে দুজন মিলে ধর্ষণ করে। তারপরে সেখানেই ফেলে রেখে চলে যায়।

পরদিন সকালে ওই নাবালিকাকে খুঁজতে গিয়ে পরিবারের লোকেরা ওই জায়গায় হাত-পা বাঁধা অবস্থায় খুঁজে পায়। সুপারিন্টেনডেন্ট অফ পুলিশ এল আর কুমার জানিয়েছেন অভিযোগ নেওয়া হয়েছে এবং ওই নাবালিকার চিকিৎসা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে।

দুই অভিযুক্ত রুপেশ এবং যোগেন্দ্র কে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তদন্ত চলছে বলেও জানানো হয়েছে পুলিশের তরফ থেকে।