প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহ থানা এলাকার পাতুলিয়ায় বিজেপি কর্মীর স্ত্রীকে গণ ধর্ষনের অভিযোগ উঠল৷ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল ওই এলাকায়। বুধবার রাতে ওই গণধর্ষনের ঘটনাটি ঘটে বলে অভিযোগ। রাতেই এই ঘটনার অভিযোগ দায়ের হয়েছে খড়দহ থানায়।

নির্যাতিতা মহিলার স্বামী পাতুলিয়ার ওই বিজেপি কর্মী জানান, ‘বুধবার সন্ধ্যায় একমাত্র ছেলেকে টিউশনে পড়াতে দিয়ে ফেরার পথে পাতুলিয়া শিব মন্দিরের কাছেই রাস্তায় অন্ধকারে মুখ ঢাকা অবস্থায় চারজন দাঁড়িয়ে ছিল। তাদের মধ্যে একজন মুখ চেপে ধরে এলাকার একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে যায়৷ সেখানে নারকীয় অত্যাচার চলে আমার স্ত্রীর ওপর৷ বাড়ি ফিরতে দেরি দেখে খোঁজখবর শুরু করি। ঘটনার আকস্মিকতায় স্ত্রী প্রথমে সংজ্ঞা হারান। পরে ওই এলাকারই অন্য এক প্রতিবেশী তাকে উদ্ধার করে আমাকে খবর দিলে আমি গিয়ে স্ত্রীকে নিয়ে এসে পানিহাটি হাসপাতালে ভরতি করি। যারা এই অত্যাচার চালিয়েছে তাদের প্রত্যেকেরই মুখ ঢাকা থাকায় ওদের চেনা যায়নি। পুলিশকে গোটা ঘটনার কথা জানিয়েছি। অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তি চাই।’

আরও পড়ুন : শ্রীদেবীর মৃত্যু ‘পরিকল্পিত খুন’ থেকে #MeToo, ২০১৮র সবথেকে বড় বিতর্ক

এদিকে এই ঘটনার খবর পেয়ে বুধবার রাতেই পাতুলিয়ার ওই বিজেপি কর্মীর স্ত্রীকে দেখতে পানিহাটি স্টেট জেনারেল হাসপাতালে পৌঁছান বিজেপির উত্তর কলকাতা সাংগঠনিক জেলা সভাপতি মানস ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, ‘এই ঘটনার পিছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যও থাকতে পারে। তবে এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করে অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করুক পুলিশ৷’

বর্তমানে ওই নির্যাতিতা মহিলা পানিহাটি স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। খড়দহ থানার পুলিশ জানিয়েছে, গণধর্ষনের লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তবে ঠিক কী ঘটনা ঘটেছে তার তদন্ত চলছে। নির্যাতিতা মহিলার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হচ্ছে। অভিযুক্ত দুষ্কৃতীদের খোঁজ চলছে।

এদিকে পানিহাটি হাসপাতালের চিকিৎসকদের সূত্রের খবর, নির্যাতিতা মহিলা তার উপর হওয়া অত্যাচারের জেরে এখনো ট্রমার মধ্যে রয়েছে। পুলিশ সূত্রের খবর, নির্যাতিতা মহিলা কিছুটা সুস্থ হলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে অপরাধীদের চিহ্নিত করা যাবে৷