মস্কোঃ  বাথটবে বসে চার্জে বসিয়ে গান শুনছিল ১২ বছর বয়সী রাশিয়ান বালিকা সেনিয়া। ঘন্টাখানেক সব কিছুই ঠিকই ছিল। কিন্তু হঠাত করে চার্জ দেওয়া মোবাইলটি বাথটবে পড়ে গেলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু হয় সেনিয়ার। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে রাশিয়ার মস্কোর সারপুকোভস্কি এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত সেনিয়ার মা চাকরির সূত্রে অফিসে ছিলেন। বাড়িতে একাই ছিল সে। তার মা পুলিশকে জানান, স্কুল শেষে বাস্কেটবল খেলে বাড়িতে ফেরে সেনিয়া। এরপর সে প্রত্যেকদিনের মতোই স্নানে যায়। শুধু তাই নয়, প্রত্যেকদিনের মতোই মোবাইল ফোনটি চার্জে বসিয়ে গান শুনতে শুনতে বাথটবে স্নান করে সে। কিন্তু সেদিন যেন সবকিছু বদলে গিয়েছিল! বাড়িতে ফিরে দীর্ঘক্ষন মেয়ের আওয়াজ পাইনি! কার্যত দরজা ভেঙেই ভিতরে ঢুকতে হয়।

এরপর বাথরুমের দরজা ভেঙে ঢুকে দেখা যায় চার্জার লাগানো অবস্থায় মোবাইল বাথটবের জলে ভেসে। এমনকি, কানে থাকা হেডফোনটিও জলে পড়ে রয়েছে। এই ছবি দেখে রীতিমত আঁতকে ওঠেন সেনিয়ার মা। মেয়েকে জল থেকে তুলে বাচানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তা কোনও কাজেই লাগে না। কারণ ততক্ষণে অনেকটাই দেরি হয়ে গিয়েছে।

প্রাথমিক তদন্ত শেষে পুলিশ জানায়, বাথটাবে বসে গান শুনতে শুনতে তার ফোনের চার্জ শেষ হয়। ফোনে চার্জ দিতে বিদ্যুতের তারে তা দিতে গেলে ওই তারসহ ফোনটি বাথটাবের জলে পড়ে যায়। এতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তখনই মানা যায় সেনিয়া। এই ঘটনার পরেই স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসনের তরফে এই বিষয়ে সতর্ক থাকার বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে শহরের সর্বত্র।