প্রতীকী ছবি

লুধিয়ানা: গাড়ি থেকে টেনে হিঁচড়ে নামিয়ে ২১ বছর বয়সী এক তরুণীকে ধর্ষণ করল ১০ যুবক৷ শিউরে ওঠার মতো ঘটনাটি ঘটেছে পঞ্জাবের লুধিয়ানা থেকে ১৫ কিমি দুরে একটি গ্রামে৷ দায়ের হয়েছে অভিযোগ৷ এখনও অধরা অভিযুক্তরা৷ তাদের খোঁজে শুরু হয়েছে তদন্ত৷

ঘটনাটি শনিবার রাতের৷ সেই সময় গাড়িতে করে লুধিয়ানা থেকে ইসেওয়াল গ্রামের দিকে যাচ্ছিলেন ওই তরুণী৷ সঙ্গে এক পুরুষ বন্ধুও ছিল৷ তাদের পিছন পিছন তিনটি বাইকে করে আসছিল কয়েকজন যুবক৷ জাগরাওর কাছে আসতেই গাড়িটি দাঁড়িয়ে পড়ে৷ এরপর গাড়িটিকে লক্ষ্য করে পাথর ও ইট ছুঁড়ে মারে তারা৷

তাদের মধ্যে কেউ বাইক থেকে নেমে গাড়ির কাছে চলে যায়৷ এরপর গাড়ির ভেতর থাকা তরুণীকে টেনে হিঁচড়ে বের করে আনে৷ বের করে আনা হয় পুরুষ সঙ্গীকেও৷ দু’জনকে খালের পাশে একটি খালি জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয়৷ ডাকা হয় আরও ছয়-সাত যুবককে৷ দশজন মিলে এরপর ওই তরুণীকে একে একে ধর্ষণ করে৷ রবিবার অবধি চলে এই অত্যাচার৷ পরে তারা সেখান থেকে চম্পট দেয়৷

জেলার পুলিশ সুপার তরুণ রট্টন গণধর্ষণের কথা স্বীকার করে নেন৷ জানান, মেডিক্যাল পরীক্ষায় গণধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে৷ পুলিশ অজ্ঞাতপরিচয় ১০ যুবকের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করেছে৷ চলছে তদন্ত৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.