ক্যানবেরা : ‘আও বাতায়ু তুমহে অ্যান্ডে কা ফানডা’। সংগীতাসর থেকে শুরু করে প্রকাশ্য জনসভা, বেফাঁস বলেছেন কি, জনতা-জনার্দন তৈরি সরাসরি তাঁদের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে দিতে। চোটি-জুতো তো বটেই, পচা টোম্যাটো থেকে শুরু করে পচা ডিম নিয়ে কোমর বেঁধে থাকেন ছোড়বার তালে। কিন্তু তাই বলে দেশের প্রধানমন্ত্রীর মাথায় ডিম ছোড়া! তাও আবার প্রকাশ্য নির্বাচনী জনসভায়! এই দুঃসাহস দেখানোর ব্যক্তিত্ব পাওয়া নেহাতই দুস্কর। কিন্তু সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ায় ঘটেছে এমনই ঘটনা।

মঙ্গলবার এক জনসভায় নির্বাচনী প্রচারে হাজির হন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। সেখানেই তাঁকে উদ্দেশ্য করে ডিম ছোড়েন বছর ২৫-এর এক তরুণী। নিরাপত্তারক্ষীরা সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে ধরে ফেলেন। গ্রেফতার করা হয় তরুণীকে।

সপ্তাহখানেক পরই নির্বাচন অস্ট্রেলিয়ায়। সেই কারণেই গতকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার নির্বাচনী প্রচারে জনসভায় হাজির হন স্কট মরিসন। অস্ট্রেলিয়ার আলবুরির নিউ সাউথ ওয়েল সিটিতে ওমেন্স অ্যাসোসিয়েশনের একটি অনুষ্ঠানে এসেছিলেন তিনি। সেখানে আচমকাই পিছন থেকে এসে হাজির হন ২৫ বছরের ওই তরুণী। হঠাৎই তিনি প্রধানমন্ত্রীর মাথায় ডিম ফাটানোর চেষ্টা করেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এই খবর সম্প্রচার করে। স্থানীয় একটি টিভি চ্যানেল স্কাই নিউজও ওই ঘটনা সম্প্রচার করেছে।

তাদের প্রচারিত সংবাদে দেখা গিয়েছে, প্রচার সভায় স্কট মরিসন সমর্থকদের সঙ্গে কথা বলছেন। আচমকাই পিছন থেকে সেখানে এসে হাজির হলেন এক তরুণী। তারপর তিনি প্রধানমন্ত্রীর মাথায় ডিম ফাটানোর চেষ্টা করেন। তবে ডিমটি ফাটেনি। মরিসনের মাথা ঘেঁষে ডিম উড়ে গিয়ে পড়ে পাশে।

নির্বাচনী জনসভা উপস্থিত হয়ে বিব্রত হতে হয় অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে। ঘটনার পর চরম বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয় অনুষ্ঠান স্থলে। হুড়োহুড়িতে পড়ে যান এক বৃদ্ধা। প্রধানমন্ত্রী নিজে গিয়ে তাঁকে তোলেন। বৃদ্ধার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেন স্কট মরিস। তবে আলবুরির এই ঘটনাকে নিন্দনীয় বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। তিনি জানান, এভাবে যাঁরা নিজেদের ঘরেই হামলা করে, তাঁদের বিরুদ্ধেই লড়তে হবে অস্ট্রেলিয়াকে।

প্রধানমন্ত্রী টুইট করে লিখেছেন, তিনি ওই বৃদ্ধা মহিলার জন্য দুঃখিত, যিনি পায়ে চোট পেয়েছিলেন। এদিকে গ্রেফতার হওয়া ওই তরুণীর বক্তব্য, ৬ প্যাকেট ডিম নিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। পরে অবশ্য শর্তসাপেক্ষে তাঁকে জামিনও দেওয়া হয়েছে।