ভোপাল: সময় যতই এগিয়ে যাক না কেন, কুসংস্কারের জায়গা আজও আছে সমাজে। বিশেষত প্রত্যন্ত অঞ্চলে, যেখানে শিক্ষার আলো এখনও পৌঁছয়নি, সেখানে এ সমস্যা আজও বর্তমান। কোথাও সাপের ছোবলের পর ডেকে আনা হয় ওঝা, আবার কোথাও শিশুবলি দেওয়ার মত নারকীয় ঘটনাও ঘটে থাকে। এবার সেরকমই একটা ঘটনা ঘটল মধ্যপ্রদেশে।

গুড্ডি তোমর নামে এক বছর ৪৫-এর মহিলা জিভ কেটে উৎসর্গ করলেন মন্দিরে। পুলিশ সূত্রে এই খবর জানা গিয়েছে। ওই মহিলা দেবী দুর্গার ভক্ত। মধ্যপ্রদেশের রাজধানী থেকে অন্তত ৫০ কিলোমিটার দূরে তারসামা গ্রামে ঘটেছে এই ঘটনা। বীজাসেন মাতা মন্দিরে ও জিভ কেটে উৎসর্গ করেছেন তিনি।

মন্দিরে উপস্থিত ভক্তরা তাঁকে মোরেনা জেলা হাসপাতালে নিয়ে যান। আপাতত সেখানেই চিকিৎসা চলছে তাঁর। নিজের বিশ্বাস থেকেই তিনি এই কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন মহিলা।

মহিলার স্বামী জানিয়েছেন, বিয়ের পর থেকে প্রত্যেকদিনই সকাল-সন্ধে ওই মন্দিরে যান এই মহিলা। তাঁদের তিন সন্তান রয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।