Mumbai Viral Video

মুম্বাইঃ আরব সাগরের উপরে সৃষ্ট তাউকতে ঘূর্ণিঝড় (cyclonic storm Tauktae), যা সোমবার সকালে খুব মারাত্মক আকার ধারণ করেছিল। এই ঘূর্ণিঝড় মুম্বাইতে দুর্যোগপূর্ণ বাতাস এবং ভারী বৃষ্টি বয়ে এনেছে। শহরের (Mumbai) সর্বত্র উপড়ে পড়ছে গাছ, ধসে পড়ছে ভবন এবং এমনকি বৃষ্টি-সংক্রান্ত কয়েকটি দুর্ঘটনার খবরও পাওয়া গেছে। কোভিড (Corona) এবং ঝড়ের দ্বৈত হুমকির কারণে অনেকেই ঘরে বসে রয়েছেন এই সময়, আর ঠিক তখনই রাস্তায় একটি মহিলা পৌর কর্মচারীর ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে তুমুল ভাইরাল (Viral) হয়েছে, যা মানুষের হৃদয়কে স্পর্শ করেছে।

ঘূর্ণিঝড়ের মধ্য ওই মহিলা ঝাড়ুদার নিজের জীবনের পরোয়া না করে কাজের প্রতি নিষ্ঠা দেখালেন। তিনি ওই তুমুল ঝড়বৃষ্টির মধ্যেও রাস্তা ঝাঁট দিতে ব্যস্ত ছিলেন। মাথায় প্লাস্টিকের গিয়ার ছাড়া বা রেইন কোট না থাকা সত্ত্বেও মহিলাটি গাছ থেকে পড়া পাতা রাস্তা থেকে সরিয়ে দিতে ব্যস্ত ছিলেন। সেই ভিডিও পাশের একটি বিল্ডিং থেকে কেউ একজন ক্যামেরাবন্দী করে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে। যা দেখে ওই মহিলা কর্মীকে কুর্নিশ জানাতে ব্যস্ত হয়ে যায় নেটিজেনরাও।

ভিডিওটি ভাইরাল (Viral Video) হলে অনেকেই মহিলার সেবা এবং উৎসর্গকে প্রশংসা করেছেন। ব্যবসায়ী আনন্দ মাহিন্দ্রাও ভিডিওটি শেয়ার করে বলেছিলেন, ”এটি নিয়ে কোনও প্রশ্ন নেই। আজকের জন্য এর চেয়ে ভাল অনুপ্রেরণা নেই। আমি জানি যে @MYBMC তাদেরকে রেইনকোট সরবরাহ করে, তবে তারা আবার তা পরীক্ষা করে দেখতে পারে যে প্রত্যেকের কাছে তা রয়েছে কিনা … “

তবে ভিডিওর কমেন্ট বক্সে আরও অনেকে বিএমসিকে সুরক্ষার জন্য পৌরসভার কর্মীদের প্রতিরক্ষামূলক রেইনকোট এবং গিয়ার সরবরাহ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। একজন টুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন, ”এই সাহসী হৃদয়গুলি কোভিড যোদ্ধাদের চেয়ে কম কিছু নয়। প্রিয় @ MYBMC– দয়া করে তাদের প্রতিরক্ষামূলক গিয়ার্স / কিট সরবরাহ করুন। এনারা মাটিতে আমাদের প্রথম সারির যোদ্ধা, যে কোনও প্রতিকূল পরিস্থিতিতে রাস্তাগুলি পরিষ্কার করে এনারা। আমরাও তাদের জন্য এটি করতে পারি। “

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.