ইসলামাবাদ: ভোটে কারচুপির অভিযোগে নয়৷ মহিলারা ভোট দিতে না পারায় নির্বাচনই বাতিল করল পাকিস্তান নির্বাচন কমিশন৷
৭ মে পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমে খাইবার-পাখতুনওয়া অঞ্চলে নির্বাচন হয়৷ দীর্ঘদিন ধরেই ধর্মীয় গোঁড়ামি আচ্ছন্ন করে রেখেছে এই তল্লাটকে৷ এই নির্বাচনে নিম্ন দার এলাকায় কট্টরপন্থী জামাত-ই-ইসলামি পার্টির প্রার্থী জয়ী হন৷ কিন্তু দেখা যায়, কট্টরবাদীদের ফতোয়ায় ওখানকার মহিলারা নির্বাচনে অংশই নিতে পারেননি এবং ভোটও দিতে পারেননি৷ এরপর, বিভিন্ন মহিলা সংগঠন, সংবাদমাধ্যমের অভিযোগ পেয়ে নির্বাচনী ফলকে বাতিল ঘোষণা করেছে পাকিস্তান নির্বাচন কমিশন৷ আপাতত উপ-নির্বাচনের নির্দেশ দেওয়া হলেও ভোটের দিনক্ষণ এখনও চূড়ান্ত হয়নি৷
নির্বাচন কমিশনের এই সাহসী সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন সমাজকর্মীরা৷ এর আগেও, মহিলাদের ভোট দিতে না দেওয়ায় ২০১৩ সালে উত্তর-পশ্চিম প্রদেশের দুই কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন বাতিল করার পাশাপাশি দু’জনকে গ্রেফতারও করা হয়৷ উল্লেখ্য, পাকিস্তানের বিভিন্ন পিছিয়ে-পড়া এলাকায়, বিশেষ করে খাইবার পাখতুনওয়া এবং দক্ষিণ-পশ্চিম বালুচিস্তান প্রদেশে বরাবরই মহিলা ভোটারদের ভোটদানের হার খুব কম৷ কিন্তু, পাকিস্তান নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তে ছবি এর পর ধীরে হলেও বদলাতে পারে বলে আশা করছেন সমাজকর্মীরা৷

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।