নয়াদিল্লি: কর্মস্থলে যৌন হেনস্থা ও হয়রানির শিকার এক তরুণী৷ এক বা একাধিক নয় কোম্পানির ৪৩ জন পুরুষ সহকর্মীর বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ আনলেন ওই মহিলা কর্মী৷ সম্প্রতি নয়ডা থানায় একটি অভিযোগও দায়ের করেন ওই নির্যাতিতা৷ পুলিশের কাছে অভিযোগে ওই তরুণী জানান, নানা সময় কোম্পানির পুরুষ কর্মীরা তাদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের ইঙ্গিত দিয়েছে৷ কেউ কেউ তো সরাসরি রাত কাটানোর প্রস্তাবও দিয়েছে৷

এই নিয়ে আগে রাজ্য মহিলা কমিশন, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ও দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে চিঠি লেখেন সে৷ কিন্তু তারপরেও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কেউ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ৷

গাজিয়াবাদের বাসিন্দা বছর ২০র ওই তরুণী নয়ডার একটি আইটি কোম্পানিতে কর্মরতা৷ ২০১৬ সাল থেকে এই কোম্পানিতে আছে সে৷ কিন্তু ঝামেলার সূত্রপাত গত বছর নভেম্বরের পর থেকে৷ পুলিশকে সে জানিয়েছে, নভেম্বরের পর থেকে কোম্পানির পুরুষ কর্মীরা তাঁকে যৌন হেনস্থা করা শুরু করে৷

নানা রকম যৌন ইঙ্গিত দিত৷ এমনকী একাধিক পুরুষ সহকর্মীর সঙ্গে রাত কাটানোর প্রস্তাবও পান৷ এছাড়া হোয়াটস অ্যাপে গ্রুপে তাঁর নামে অনেক আপত্তিজনক ও কুরুচিকর কিছু পোস্ট করা হত৷ পুলিশের কাছে অভিযোগে সে জানিয়েছে, অনেক পুরুষ সহকর্মী তাদের পুরুষাঙ্গের ছবি তুলে পাঠাত এবং যৌন সম্পর্ক স্থাপনের জন্য জোর করত৷

পুলিশের কাছে এফআইআরে ৪৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন তিনি৷ তবে তার মধ্যে ২১ জন ওই তরুণীর পরিচিত৷ তারা অফিস কর্মী৷ কিন্তু বাকি ২২ জনকে চেনেন না ওই তরুণী৷ পুলিশ অভিযোগ নিলেও এখনও অবধি কাউকে গ্রেফতার করেনি৷ তদন্তকারী এক আধিকারিক জানিয়েছেন, আগে অভিযোগের সারবত্তা খুঁজে দেখতে হবে৷ এরপর প্রমাণ জোগাড় করে অভিযুক্তদের জেরা করতে হবে৷ দেখতে হবে অফিসের সিসিটিভি ফুটেজও৷ তারপরেই ব্যবস্থা নেবে পুলিশ৷