নয়াদিল্লি: পেনশন সংক্রান্ত নিয়মাবলীতে সংশোধনী আনল কেন্দ্রীয় সরকার। ফলে এই নতুন নিয়মে কোনও সরকারি কর্মী সাত বছরের কম সময় ধরে কাজ করে মারা গেলেও, কিন্তু তাঁর পরিবার ১০ বছর বর্ধিত পারিবারিক পেনশন পাবেন।

এতদিন পারিবারিক পেনশনের জন্য ওই কর্মীকে অন্তত সাত বছর কাজ করা আবশ্যিক ছিল। সেক্ষেত্রে পরিবার তাঁর শেষ বেতনের ৫০ শতাংশ পেনশন পেত। অন্যথায় তাঁর পরিবার ৩০ শতাংশ হারে পেনশন পেত। কিন্তু এদিন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ কেন্দ্রীয় সিভিল সার্ভিস (পেনশন) বিধি-১৯৭২-এর সংশোধনীতে অনুমোদন করে সই দিয়েছেন। তারপরে সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে সেকথা জানান হয়েছে। কেন্দ্রীয় সিভিল সার্ভিস (পেনশন) সংশোধনী বিধি-২০১৯, কার্যকর হবে ১ অক্টোবর থেকে।

এদিন সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, এবার থেকে কোনও সরকারি কর্মী যদি টানা সাত বছর নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ নাও করেন, তাহলেও তাঁর পরিবার বর্ধিত হারে পেনশন পাওয়ার অধিকারী হবেন। তবে এই পেনশন পাওয়ার ক্ষেত্রে অন্যান্য শর্তাবলী পূরণ করতে হবে বলেও এই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। ডেথ-গ্র্যাচুইটির পরিমাণ নির্ধারণ প্রসঙ্গে জানানো হয়েছে অফিসের প্রধানই যাবতীয় নিয়ম মেনে ওই পরিমাণ ঠিক করে দেবেন।

কেন্দ্রের ব্যক্তিবর্গ দফতরের তরফে বলা হয়েছে, একজন সরকারি কর্মী যদি কর্মক্ষেত্রে অনেক আগেই মারা যান, তবে তাঁর পরিবারের পেনশন আরও বেশি করে প্রয়োজন হয়। ওই সরকারি কর্মীর বেতন কর্মজীবনের শুরুতে যথেষ্ট কম থাকে ফলে তা বিবেচনা করেই সরকার বর্তমান বিধিতে সংশোধনী নিয়ে এল। যাতে কোনও কর্মী সাত বছর টানা কাজ না করেও মারা গেলে, যাতে তাঁর পরিবার বেতনের ৫০ শতাংশ হারে পেনশন পেতে পারেন।