ফাইল ছবি

আগরতলা: বাম জমানার চেয়ে অনেক বেশি অমানবিক হয়ে উঠছে পালাবদলের পরে রাজ্যে ক্ষমতায় আসা বিজেপি সরকার৷ নয়া সরকার একের পর এক সুযোগ সুবিধাগুলি তুলে দিচ্ছে৷ ত্রিপুরায় বিজেপি সরকার চালু করছে ২০০৪ সালের কেন্দ্রীয় পেনশন নীতি এ রাজ্যের সরকারি কর্মীদের জন্য যারা কাজে যোগ দিচ্ছেন ২০১৮ সালের ১ জুলাইয়ের পর৷ তারা আরএ কিছু সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন৷ এই মর্মে রাজ্য সরকার ১৩ জুলাই নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে৷

নয়া সরকারের এহেন নীতি অবশ্যই গালে থাপ্পর মেরেছে নতুন কাজে যোগ দিতে আসা অথবা ভবিষ্যতে সরকারি কাজে যোগ দিতে ইচ্ছুক মানুষদের ৷ রাজকোষের বেহাল দশা থাকা স্বত্তেও বাম আমলে মাণিক সরকার চাননি সরকারি কর্মীদের পেনশন সহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বন্ধ করে দিতে৷

কিন্তু ক্ষমতায় এসে চার মাসের মধ্যেই বিজেপি এমন কঠোর সিদ্ধান্ত নিল কোনও রকম সপ্তম বেতন কমিশনে না দিয়ে এবং নতুন কোম নিয়োগের আগেই৷ ফলে সরকারি কর্মীদের ভিতর পেনশন নীতি বদলে ফেলা হল যাতে আর জেনারেল প্রভিডেন্ট ফান্ড( জিপিএফ) এবং অন্যান্য সুবিধা না দিতে হয়৷

যথারীতি এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ সিপিএম৷ ত্রিপুরার এক সংবাদমাধ্যমকে রাজ্যের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ভানুলাল সাহা জানিয়েছেন, কংগ্রেস জমানায় কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে চাপ এসেছিল নয়া পেনশন নীতি চালু করার ৷ কিন্তু বাম সরকার সে পথে হাঁটতে চায়নি৷ তাঁর মতে , নতুন নীতি অনুসারে কেউ সরকারি চাকরি ছাড়লে তার ব্যাপারে সরকারের আর কোনও দায় থাকবে না৷ এমন নীতি তিনি নিষ্ঠুর অ্যাখ্যা দিয়েছেন৷